অপচিকিৎসালয়গুলোর বিরুদ্ধে প্রশাসন একটু নড়েচড়ে বসুক

প্রকাশিতঃ ১১:০২ অপরাহ্ণ, মঙ্গল, ১০ নভেম্বর ২০

ডা. আতিকুজ্জামান ফিলিপ :

মাইণ্ড এইড হাসপাতাল(!)’র মতো এই ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে ব্যাঙের ছাতার মত গজিয়ে উঠা এরকম অসংখ্য হাসপাতাল নামের টর্চার সেল আছে যেখানে মাদকাসক্ত বা মানসিক রুগির চিকিৎসার নামে এই ধরনের রুগিদের উপর অহরহ নির্বিচারে অমানবিক নির্যাতন চালানো হয়!

তাদের এমন অমানবিক নির্যাতনে মানসিক রুগি ভালো হওয়া তো দূরের কথা আরো মানসিক বিকারগ্রস্ত হয়ে পড়ে, মাদকাসক্ত রুগি মাদক ছাড়া তো দূরের কথা সুযোগ পেলে মাদকের সাথে আরো ঘনিষ্ঠ হয়ে পড়ে!

ইতিপূর্বে বহু রুগির স্বজনের কাছে এরকম অনেক কাহিনী শুনলেও তা বিশ্বাস করতে মনে সংশয় জেগেছে কিন্তু আজ স্যোসাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া মানসিক রোগাক্রান্ত একজন সিনিয়র এএসপি’র এইরকম অমানবিক টর্চারের শিকার হয়ে করুণ মৃত্যূর দৃশ্য দেখার পর আর কোন সংশয় রইলো না।

খবর নিয়ে দেখা গেছে এই ধরনের অপচিকিৎসালয়গুলোর অধিকাংশের সাথেই কোন মনরোগ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক বা সাধারন চিকিৎসকেরও কোন সংশ্রব নেই।

অধিকাংশ ক্ষেত্রেই দেখা যায় চিকিৎসাপেশার সাথে সংশ্লিষ্ট নয় এমন ব্যক্তিরাও গায়ে এপ্রোন চড়িয়ে গলায় স্টেথো ঝুলিয়ে এইসব হাসপাতাল নামক টর্চার সেলের চিকিৎসক বনে যায় এবং নিজেদের আবিস্কৃত এই ধরনের অবৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে অপচিকিৎসা চালাতে থাকে।
এই কাজে এইসব হাসপাতাল(!)’র মালিক, ম্যানেজার, ওয়ার্ডবয়সহ প্রায় সকল স্টাফই সরাসরি জড়িত।

এখানে বলে রাখা ভালো যে,
কোন ভায়োলেন্ট বা চরমমাত্রায় এগ্রেসিভ কোন মানসিক বিকারগ্রস্ত রুগিকে একজন চিকিৎসক কখনোই কিলঘুসির মতো এমন অমানবিক অপচিকিৎসা পদ্ধতির উপদেশ দিতে পারেন না।

একজন সদ্য এমবিবিএস পাশ করা ইন্টার্ন চিকিৎসকও জানেন এই ধরনের এগ্রেসিভ রুগির চিকিৎসায় সিডেটিভ ব্যাবহার করা হয়, কিলঘুসি নয়।

পরিতাপের বিষয় হলো,
প্রশাসন বা সংশ্লিষ্ট সংস্থার কোনরকম নজরদারী না থাকায় এইসব হাসপাতাল(!)’র মালিকরা একেকটি ব্যাবসাকেন্দ্রে খুলে চিকিৎসার নামে রুগির স্বজনের কাছ থেকে যেমন মোটা অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। তেমনি এদের অপচিকিৎসা ও নির্যাতনে কোন রুগির মৃত্যূ হলেও তারা ধরাছোঁয়ার বাইরেই থেকে যাচ্ছে!

মানসিক বা মাদকাসক্ত রুগির স্বজনেরাও সামাজিকভাবে বিব্রত হওয়ার আশঙ্কায় এটা নিয়ে কোনরকম উচ্চবাচ্যও করছে না।
প্রশাসনের প্রায় নাকের ডগায় অবস্থিত এইসব হাসপাতাল(!)’র চরমতম অবৈজ্ঞানিক অপচিকিৎসা এতোদিন প্রশাসনের নজরে আসেনি!

আমরা চাই,
প্রশাসন এবার একটু নড়েচড়ে বসুক।
সিনিয়র এএসপি হত্যার দৃষ্টান্তমূলক বিচার হোক এবং হাসপাতাল নামক এই ধরনের অপচিকিৎসালয়গুলো চিরতরে উচ্ছেদ হোক।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।