আইনের ফাঁক গলে যেভাবে বের হয়ে যেতে পারেন ডা. সাবরিনা!

প্রকাশিতঃ ১২:০৪ অপরাহ্ণ, মঙ্গল, ১৪ জুলাই ২০

অ্যাডভোকেট কাজী ওয়াসিমুল হক :

বীর বাঙ্গালী আপাতত ডাঃ সাবরিনার ড্রেস নিয়ে মেতে আছে, আরে ভাই থামেন, ড্রেস নিয়ে টানাটানি পরে, জালের ফাক দিয়ে যে নীল তিমি বের হয়ে যাচ্ছে, সেই খবর আছে?
.
ডাঃ সাবরিনার বিরুদ্ধে যে দুটি অভিযোগ বেশী শোনা যাচ্ছে, সরকারী চাকুরীতে থেকে প্রাইভেট কোম্পানীর চেয়ারম্যান হওয়া এবং ভূয়া করোনা রিপোর্ট দিয়ে পাত্তি কামানো রাইট?
.
আসুন পরিস্থিতি বিশ্লেষন করি।
.
RJSC ওয়েব সাইটে সার্চ দিয়ে আমি JKG Healthcare নামে কোন কোম্পানী পাইনি, এদের ফেবু আর ওয়েব পেজ, দুটোই আপাতত অফ, আর যতদূর মনে পরে, এরা কখনো লিমিটেড লিখতো না, এদের লিঙ্কড ইন সাইটে লেখা ‘নন প্রফিট অর্গানাইজেশন’, কিন্তু NGO লিস্টে আবার নাম নেই, মানে কি বুঝলেন?
.
মানে হচ্ছে JKG Healthcare খুব সম্ভবত এক বা একাধিক ব্যাক্তির ব্যাক্তিগত ব্যবসা, মুদী দোকানের যেমন চেয়ারম্যান হয়না, তেমনি ব্যক্তিগত ব্যবসায় যদি কাউকে ‘চেয়ারম্যান’ বলাও হয়, সেই পদের দায়বদ্ধতা কোন কোম্পানী বা ফার্মের চেয়ারম্যানের মত কখনো হয়না, এই চেয়ারম্যান সেই ‘চেয়ারম্যান’ না বাহে, এই চেয়ারম্যান কেবল নামে, কামে না।
.
এবার আসি ভূয়া করোনা সার্টিফিকেট প্রসঙ্গে, উনি নিজে এসব দিয়েছেন? দেয়ার তো কথা না, কারন উনি এই বিষয়ের ডাক্তার না, যে রিপোর্ট উনার কম্পিউটারে পাওয়া গেছে বলা হচ্ছে, সেসব কিভাবে এসেছে? যদি ই-মেইলে সিসি হিসেবে এসে থাকে, তাহলে?
.
কেস কোনদিকে আগাবে বুঝতে পারছেন? এই লেখা ডাঃ সাবরিনাকে বাচানোর জন্য না, আইনের ফাক গলে উনি কিভাবে বের হয়ে যেতে পারেন তার ভবিষ্যৎবানী মাত্র!

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।