আজব দেশপ্রেম!!

প্রকাশিতঃ ৩:৫৬ অপরাহ্ণ, বৃহঃ, ৬ ফেব্রুয়ারি ২০

সিরাজুল ইসলাম :

আজব দেশপ্রেম!!
রাজধানী ঢাকা শহরের রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে কত ভদ্রজন প্রস্রাব করেন তার শেষ নেই। হয়ত যথেষ্ট সংখ্যক পাবলিক টয়লেট নেই তাই তারা এই কর্ম করেন। তবে এ যুক্তি আমি পুরোপুরি গ্রহণ করি না কারণ এটা শুধু পাবলিক টয়লেটের সংকট নয় বরং আমাদের সংস্কৃতি ও রুচিবোধের সংকটই বেশি।

সিটি কর্পোরেশনের লোকজন ড্রেনের ময়লা তুলে রাস্তার পাশে রাখছেন এবং সেই ময়লা আবার ড্রেনে যাচ্ছে নইলে শুকিয়ে বাতাসে উড়ছে, কতকটা আমাদের নাক-মুখ হয়ে, আর কতকটা খাবারের সঙ্গে পেটে যাচ্ছে! কত ড্রাইভার প্রতি মুহূর্তে গাড়ির হাইড্রোলিক হর্ন বাজাচ্ছেন!

কত ভদ্রজন মদ খেয়ে ফেইসবুকে স্ট্যাটাস দিচ্ছেন, কত মানুষ ইসলাম প্রচারের সঙ্গে জড়িত অথচ অন্যকে কঠোর ও ক্ষেত্রবিশেষে অশ্লীল ভাষায় আক্রমণ করে কথা বলছেন! এইসব অনাচারের বিরুদ্ধে কিংবা ঢাকার রাস্তার ধুলোবালি-ময়লা নোংরা গন্ধের কথা বললে অনেকেই বাঁকা চোখে তাকান। অনেকেই এসবকে দেশের বিরুদ্ধে কথা বলা বলে ধরে নেন।

তাদের মনোভাব এমন যে, দেশের প্রতি ভালোবাসা থাকলে এটা বলা সম্ভব হতো না। কোনো দেশের সঙ্গে বাংলাদেশের নোংরা-ময়লা অথবা আইন না মানার সংস্কৃতির তুলনা করলেই দেশবিরোধী ধরে নেন তারা। দেশের উন্নতির চিন্তাকে, পরিচ্ছন্ন পরিবেশ পাওয়ার আকাঙ্ক্ষাকে এরা দেশদ্রোহিতা বলতে পারলে নিজেকে বিরাট বড় দেশপ্রেমিক মনে করেন।

আমাদের দেশে ম্যানার শেখাতে গেলে বিপদ! তখন ২০০ মাইল স্পিডে অনেকের ‘জাতীয়তাবোধ’ খাড়া হয়ে ওঠে। এটা বিদেশে থাকতেও দেখেছি, দেশে থেকেও দেখি। তারা ময়লার নোংরার মধ্যে থাকবেন কিন্তু এই উন্নয়ন আর পরিচ্ছন্নতা কিংবা সুন্দর ম্যানারের কথা বলা যাবে না।

এ বড় আজব চেতনা; আজব দেশপ্রেম!! তারা বলে থাকেন- “শত হলেও নিজের দেশ”।

আমি বলি- বুঝলাম দেশ, তাই বলে নোংরা ময়লা নিয়ে থাকবেন? পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার কথা বলা যাবে না?! দেশকে ভালোবাসলে বুঝি- সুন্দর, পরিচ্ছন্ন দেশ চাওয়া অপরাধ হয়ে যায়!!

লেখক : সাংবাদিক ও কলামিস্ট

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ