‘আমার ইতিহাস ও ঐহিত্য বন্দী হতে পারে না’

প্রকাশিতঃ ৬:৫৯ অপরাহ্ণ, বুধ, ৩ জুন ২০

মো: মঈন উদ্দিন রায়হান : ইতিহাস ও ঐহিত্যের প্রতীক পুরনো ব্রহ্মপুত্র পারের ময়মনসিংহের সার্কিট হাউস ময়দানের চারপাশে দেয়াল নির্মাণের প্রতিবাদে সোচ্চার হয়ে উঠেছে ময়মনসিংহবাসী। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ সরাসরি মানববন্ধনের আয়োজন করে তারা এ প্রতিবাদ দেখান।

বুধবার (৩ জুন) দুপুরে ‘বিক্ষুব্ধ ময়মনসিংহবাসী’ ব্যানারে সার্কিট হাউস মাঠের ভেতর স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে মানববন্ধন করেছেন স্থানীয় নানা শ্রেণী-পেশার মানুষ। এছাড়াও শহরবাসী সামাজিক যোগাযোগেও প্রতিবাদ জানায়।

কবি স্বাধীন চৌধুরীর সঞ্চালনায় মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, সার্কিট হাউস মাঠে আমরা বঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারের শহীদ সদস্যদের ম্যুরাল স্থাপন চাই। আমরা বাউন্ডারি চায় না। যে কোন মূল্যে সার্কিট হাউস মাঠের চারপাশে দেয়াল নির্মাণ প্রতিহত করা হবে। প্রয়োজনে অনশনসহ কঠোর আন্দোলন কর্মসূচীর হুমকি দিয়েছে আন্দোলনকারীরা।

মানববন্ধনে বীর মুক্তিযোদ্ধা বিমল পাল বলেন, সার্কিট হাউজ মাঠটি ময়মনসিংহের ইতিহাস ঐতিহ্যের একটি অংশ। এখানে মুক্তিযুদ্ধের একটি ফলক করার প্রস্তাবনা ছিল অনেক আগে। সেটি আজও হয়নি।

ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামী লীগ যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাওকত জাহান মুকুল বলেন, ইতিপূর্বে ময়মনসিংহের অনেক ছোট বড় খেলার মাঠ দখল হয়ে গেছে। একটিমাত্র মাঠ এখন উন্মুক্ত আছে এটিকে দেয়ালবন্দী করলে খেলোয়ারদের বিকাশ বাঁধাগ্রস্ত হবে।

সুশাসনের জন্য সুজন সংগঠনের ময়মনসিংহ মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক আলী ইউসুফ বলেন, ময়মনসিংহবাসীর সাথে কোন ধরনের পরামর্শ না করে এমন সিদ্ধান্ত নেয়ার অধিকার কারো নেই। তিনি এই প্রস্তাবনাকে ‘ধান্দা প্রজেক্ট আখ্যায়িত করে বলেন, উন্নয়নের অনেক জায়গা আছে, উন্নয়ন করলে উন্নয়ন এর মত করে করেন।’

এ বিষয়ে বিভাগীয় কমিশনার কামরুল হাসান জানান, পরিবেশের ক্ষতি হবে কিংবা স্থানীয় জনগন চায় না এমন কোন কিছুই করা হবে না। সার্কিট হাউস ময়দানের সৌন্দর্য বর্ধনে ময়মনসিংহবাসী যেভাবে চাইবে সেভাবেই হবে এর উন্নয়ন।

সময় জার্নাল/

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।