করোনা সন্দেহ :
ইতালি ফেরত যুবককে হাসপাতালে পাঠালো বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ

প্রকাশিতঃ ১:৩৪ অপরাহ্ণ, বৃহঃ, ১২ মার্চ ২০

স্টাফ রিপোর্টার : ইতালি থেকে দেশে ফেরা একজনকে রাজধানীর কুয়েত মৈত্রী হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। শরীরে তাপমাত্রা বেশি থাকায় ৩০ বছর বয়সী ওই ব্যক্তিকে সকালে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিমানবন্দর পরিচালক এ এইচ এম তৌহিদ উল আহসান।

তিনি জানান, এমিরেটস এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে আসা যে যুবকের জ্বর ধরা পড়েছে, সেই ফ্লাইট কর্তৃপক্ষকে বিমানটি যথাযথভাবে পরিষ্কার করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে। এছাড়া ৪টি হেল্থ কাউন্টার দেয়া হয়েছে, তবে সেগুলোতে জনবল এখনও দেয়া হয়নি।

সকালে নিজ কার্যালয়ে তিনি জানান, বিদেশ থেকে আসা প্রতিটি যাত্রীর স্বাস্থ্যের অতীত রেকর্ড নেয়া হচ্ছে। যেসব দেশ করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেশি সেসব দেশ থেকে ফেরা যাত্রীদের গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে।

বিমানবন্দর পরিচালক জানান, স্বাস্থ্য পরীক্ষা ছাড়া বের হওয়ার কোন সুযোগ নেই। যদি কেউ ফাঁকফোকর দিয়ে বের হয়েও যায় সে ইমিগ্রেশন পার হতে পারবে না।

তবে গত ক’দিনের মতোই যথাযথ পরীক্ষা হচ্ছে কিনা তা নিয়ে সংশয় জানিয়েছেন যাত্রীরা। ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন অব্যবস্থাপনা নিয়েও।

এদিকে স্বাস্থ্য পরীক্ষায় আজ শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের দুটি স্ক্যানার কাজ করছে।

এদিকে, বিমানবন্দরে বর্তমানে দুটি স্ক্যানার কাজ করছে। তৃতীয়টি আবারও নষ্ট হওয়ায় মেরামতের কাজ চলছে। তবে আরও দুটি নতুন স্ক্যানার আনা হচ্ছে।

দক্ষিণ কোরিয়া, ইতালি, জাপান, চীন, থাইল্যান্ড এবং সিঙ্গাপুর থেকে যারা আসবে, তাদের হোম কোয়ারেন্টিনে থাকতে বলা হয়েছে বলেও জানান শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের পরিচালক।

প্রসঙ্গত, করোনাভাইরাসের কারণে ইউরোপে সবচেয়ে নাজুক অবস্থায় পড়েছে ইতালি। চীনের পর আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা এই দেশেই সবচেয়ে বেশি। করোনাভাইরাসে দেশটিতে মোট মৃতের সংখ্যা এখন ৮২৭ জন। আর গত ২৪ ঘন্টায় ১৯৬ জনের মৃত্যু হয়েছে।

এদিকে, বিশ্বের ১২৪টি দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা এখন এক লাখ ২৬ হাজার ২৬৪ জন। আর মৃতের সংখ্যা ৪ হাজার ৬৩৩ জন। এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৬৮ হাজার ২৮৫ জন।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ