ইভিএম ব্যবহার নির্বাচন ব্যবস্থা ধ্বংসের অপকৌশল: ফখরুল

প্রকাশিতঃ ২:২০ অপরাহ্ণ, রবি, ১৯ জানুয়ারি ২০

নিউজ ডেস্ক: ইভিএম ত্রুটিপূর্ণ বলে দাবি করেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, ইভিএম নির্বাচন ব্যবস্থাকে পুরোপুরি ধ্বংস করার অপকৌশল। জনগণের রায় ইভিএমে আসবে না।

রোববার সকালে রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৮৪তম জন্মবার্ষিকীতে শ্রদ্ধা জানাতে গিয়ে তিনি এ মন্তব্য করেন।

এদিন ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে বিএনপির মেয়রপ্রার্থী তাবিথ আউয়াল ও ইশরাক হোসেনকে সঙ্গে নিয়ে জিয়ার সমাধিতে মির্জা ফখরুল শ্রদ্ধা জানান।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ঢাকা সিটি নির্বাচনে একটি দলই প্রাধান্য পাচ্ছে। কমিশন কোনো ব্যবস্থা নিতে সক্ষম নয়, তাদের সেই যোগ্যতা নেই।

বিভিন্ন মহলে সমালোচনার মুখে ঢাকা সিটির নির্বাচনের তারিখ পিছিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। গতকাল শনিবার নির্বাচন কমিশন ভোটের নতুন তারিখ ঘোষণা করে। আগামী ১ ফেব্রুয়ারি ভোট গ্রহণ হবে।

এর আগে ৩০ জানুয়ারি নির্বাচন হওয়ার কথা ছিল। একই দিনে সরস্বতীপূজা। তাই তারিখ পরিবর্তনের জন্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা অনশন শুরু করেন এবং মেয়র প্রার্থীসহ বিভিন্ন মহল ৩০ তারিখ নির্বাচন না করার দাবি জানানো হয়।

এ বিষয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, এই নির্বাচন কমিশন যে অযোগ্য, ব্যর্থ, একটা নির্বাচন পরিচালনার যোগ্যতা রাখে না, তা প্রমাণ হলো। এমন একটা দিনে নির্বাচন করার সিদ্ধান্ত হলো যেদিন সরস্বতীপূজা। পূজার জায়গাগুলোতে অনেক কেন্দ্র ছিল। কমিশনের অযোগ্যতার কারণেই এসব সমস্যার সৃষ্টি হয়েছিল।

তিনি বলেন, ক্ষমতায় আসার পর গণতন্ত্রকে সংকুচিত করে ফেলেছে। রাজনৈতিক দলগুলোর স্বাভাবিক কার্যক্রম বন্ধ করে দিয়েছে।

জিয়াউর রহমান প্রসঙ্গে বলেন, জাতিকে নেতৃত্ব দিয়েছেন, অতি অল্প সময়ে মানুষকে ঐক্যবদ্ধ করেছেন। বহুদলীয় গণতন্ত্র ও মুক্ত অর্থনীতিতে তার ভূমিকা ছিল।

জিয়ার জন্মদিনে খালেদা জিয়া কারাগারে এবং তার সন্তান নির্বাসিত উল্লেখ করে মির্জা ফখরুল বলেন, আওয়ামী লীগের প্রতিহিংসার কারণেই এটা হয়েছে। তারা দেশকে অগণতান্ত্রিক স্বৈরাচারী রাষ্ট্রে পরিণত করেছে।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ