ইমামকে হামলাকারী সেই যুবক জেলে গিয়ে কোরআন পড়তে চান

প্রকাশিতঃ ৩:৪৯ অপরাহ্ণ, শুক্র, ২০ নভেম্বর ২০

লন্ডনে মসজিদের ইমামকে মুসল্লিদের সামনে ছুরি দিয়ে আঘাত করা যুবক হরটন নিজের শাস্তি হিসেবে কারাগারেই থাকতে চান। সেখানে থেকে যেন কোরআনের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পাঠ করার সুযোগ পান।

লন্ডনের রিজেন্ট পার্কে অবস্থিত সেন্ট্রাল মসজিদের ইমাম রাফাত ম্যাগলাদকে ছুরিকাঘাত করে শারীরিকভাবে জখমের কথা স্বীকার করে ড্যানিয়েল হরটন।

আকস্মিক ঘটনায় ম্যাগলাদ আহত হয়ে ডান পায়ে দাঁড়িয়ে থাকতে অক্ষম হওয়ায় মসজিদ থেকে বেরিয়ে পড়েন। তাঁর আশংকা হচ্ছিল যে যুবক তাঁকে পুনরায় আঘাত করবে।

হামলার আগে ধারণকৃত ভিডিওতে দেখা যায়, লাল জ্যাকেট পরিহিত একজন যুবককে সুন্দর নামাজ আদায়ের স্থানের সামনে উপাসনা করছে।

চলতি বছরের ২০ ফেব্রুয়ারি লন্ডনের সেন্ট্রাল মসজিদের ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশ রক্তাত্ব জায়নামাজ দেখে। তাতে একটি ব্লেডও দেখতে পায়, যা হ্যারটন আঘাতের জন্য রেখেছিল। হ্যারটনের স্থায়ী নিবাস সম্পর্কে জানা যায়নি। গত ১৬ নভেম্বর সাউথওয়ার্ক ক্রাউন আদালতে তাঁর শুনানি শুরু হয়।

হরটনের মানসিক অবস্থা সম্পর্কে জানতে দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করতে হয়। এদিকে আজ হরটন নিজের আইনজীবীর কাছে আবেদন করেন, যেন তাকে হাসপাতালের বদলে কারাগারে নেওয়া হয়।

আইনজীবী সাম ব্লোম কোপার বলেন, ‘হরটনের সঙ্গে আমার সীমিত কথা থেকে বোঝা যায়, সে শাস্তি পেতে চায়।তার কৃতকর্মের জন্য সে শাস্তি পেতে আগ্রহী। সে জেলে যেতে চায়। হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য যেতে চায়’ না।’ সে জেলে গিয়ে কোরআন পড়তে চায়। সে শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পুরো কোরআন পড়তে চায়।’

হামলার শিকার মাগদাল এখনও অসুস্থ আছেন।ক্ষতস্থানের জন্য তিনি চিকিৎসা গ্রহণ করছেন। তাঁর শরীরে এখনও দুই থেকে তিন ইঞ্চি পরিমাণ স্থান ক্ষত আছে। কারো সাহায্য ছাড়া স্বাভাবিক চলাফেরা করতে পারেন না। নামাজের ইমামতি করা এখন আর তার পক্ষে সম্ভব নয়।

আগামী ১০ ডিসেম্বর হারটনের পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করা হয়েছে। তাঁর মানসিক অবস্থা বিবেচনা করে কারাগারে পাঠানোর বিষয়টি বিবেচনা করা হবে জানান বিচারপতি ডেবোরাহ টেইলর।

সূত্র : দ্য মিরর

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।