ঋণদাতা সংস্থাগুলো আমাদের পেছনে পড়ে থাকে: নৌ প্রতিমন্ত্রী

প্রকাশিতঃ ৪:৫৭ অপরাহ্ণ, শুক্র, ১৫ নভেম্বর ১৯

নিউজ ডেস্ক: একটা সময় ছিল বাংলাদেশের বাজেট পুরোপুরি বিদেশি অর্থায়নের ওপর নির্ভরশীল থাকতো দাবি করে নৌ প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এমপি বলেন, এখন আমাদের রাজস্ব আয় হচ্ছে বলেই আমরা বাজেট নিজস্ব অর্থায়নে ৫ লাখ ২৩ হাজার কোটি টাকা দিতে পারছি।আগের বাজেটের সেই জায়গাটায় বাংলাদেশ আর নাই। বাংলাদেশের বর্তমান বাজেটের প্রায় ৮০ ভাগের বেশি আমরা নিজেদের অর্থায়নেই করতে পারি। বিদেশি কোন সংস্থার ওপর আমরা এখন নির্ভরশীল নই।

শুক্রবার দিনাজপুরে আয়কর মেলা ২০১৯ উদ্ধোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী আরও বলেন, একটা সময় ছিল যখন বাংলাদেশের আমলারা বা সরকারি কর্মকর্তারা ঋণদাতা সংস্থাগুলোর পেছন পেছন ছুটত। এখন কিন্তু দিন বদল হয়ে গেছে। এখন সেই ঋণদাতা সংস্থাগুলো আমাদের পেছনে পেছনে ছুটছে। এটাই হচ্ছে শেখ হাসিনার বাংলাদেশ।

খালিদ মাহমুদ বলেন, ‘বাংলাদেশের প্রায় ৩ কোটির উপরে মানুষ আছে যারা আয়কর দিতে পারে কিন্তু তারা দিচ্ছে না। কেউ কেউ রিটার্ন দাখিল করতে চায় না। এটা কিন্তু আমাদের দেশের বিরাট দুর্বলতা। এই দুর্বলতা কাটিয়ে উঠতে হবে। কেউ কেউ আয়কর দেওয়ার ক্ষেত্রে ভয়ে থাকে। এসব দূর করতে হবে আমাদের।

তিনি বলেন, ‘বর্তমান সরকার ডিজিটাল সরকার। আয়কর দিতে হলে কাউকে হয়রানির শিকার হতে হবে না। এখন ঘরে বসেও আয়কর পরিশোধ করা যাচ্ছে।

তিনি বলেন, ‌‘আমরা যারা আয়কর দিই তারা দেশের অর্থনীতিতে অবদান রাখি। দেশের স্বার্থে হলেও আয়কর পরিশোধ করা প্রয়োজন।

দিনাজপুর উপ কর কমিশনার মাহবুবুর রহমান জানান, এবার রংপুর কর অঞ্চলের মোট ৬টা সার্কেলে করদাতার সংখ্যা ৩০ থেকে ৪০ হাজার। রংপুর অঞ্চলে আয়কর লক্ষ্য মাত্রা ধরা হয়েছে ৮ শত ৫১ কোটি টাকা। এছাড়াও দিনাজপুর অঞ্চলের ৩টি সার্কেলে আয়করের লক্ষ্য মাত্রা ধরা হয়েছে ১০৬ কোটি টাকার মত।

রংপুর কর অঞ্চলের কর কমিশনার আব্দুল লতিফ এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, দিনাজপুর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আজিজুল ইমাম চৌধুরী, জেলা প্রশাসক মো. মাহমুদুল আলম, দিনাজপুর চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি সুজা-উর-রব চৌধুরী।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ