ঐতিহাসিক টেস্ট সিরিজ জিতল পাকিস্তান

প্রকাশিতঃ ১:৫০ অপরাহ্ণ, সোম, ২৩ ডিসেম্বর ১৯

স্পোর্টস ডেস্ক: করাচি টেস্টের ভাগ্য চতুর্থ দিন শেষেই ঠিক হয়েছিল। বাকি ছিল কেবল আনুষ্ঠানিকতা। যা পঞ্চম দিনে মাত্র ১৪ মিনিট ও ১৬ বল লাগলো। শ্রীলঙ্কাকে ২৬৩ রানের বিশাল ব্যবধানে হারালো পাকিস্তান। আর এতেই প্রায় ১০ বছর পর ঘরের মাঠে টেস্ট আয়োজন করে দুই ম্যাচ সিরিজ ১-০তে জিতে নিল স্বাগতিকরা। রাওয়ালপিন্ডিতে বৃষ্টিবিঘ্নিত প্রথম টেস্ট ড্র হয়েছিল।

এর আগে ২০০৯ সালে টেস্ট সিরিজ চলাকালীন শ্রীলঙ্কান টিম বাসের ওপর সন্ত্রাসী হামলার পর ১০ বছর দেশের মাটিতে কোনো সাদা পোশাকের সিরিজ আয়োজন করতে পারেনি পাকিস্তান।

পাকিস্তানের এ জয়ে দারুণ কীর্তি গড়লেন তরুণ ফাস্ট বোলার নাসিম শাহ। দ্বিতীয় সর্বকনিষ্ঠ বোলার হিসেবে টেস্টে পাঁচ উইকেট নিলেন তিনি। মাত্র ১৬ বছর ৩০৭ দিনেই রেকর্ডটি হলো তার। তবে ১৯৫৮ সালে তারই স্বদেশী নাসিম-উল-গনি ১৬ বছর ৩০৩ দিনে পাঁচ উইকেট নিয়ে মূল রেকর্ডের মালিক।

সোমবার (২৩ ডিসেম্বর) পঞ্চম দিনে নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ৭ উইকেট হারিয়ে ২১২ রানে খেলতে নামা শ্রীলঙ্কা আর কোনো রানই যোগ করতে পারেনি। আগের দিনে সেঞ্চুরি করা ওশাদা ফার্নান্দোকে (১০২) বিদায় করেন স্পিনার ইয়াসির শাহ। আর লাসিথ এমবুলদেনিয়া ও বিশ্ব ফার্নান্দোকে শূন্য রানে ফিরিয়ে তৃতীয় টেস্ট খেলতে নেমেই ক্যারিয়ারের প্রথম পাঁচ উইকেট তুলে নেন নাসিম।

পাকিস্তানি বোলারদের মধ্যে নাসিম সর্বোচ্চ পাঁচ উইকেট পান। ইয়াসির দখল করেন দুটি উইকেট। আর শাহীন শাহ আফ্রিদি, মোহাম্মদ আব্বাস ও হারিস সোহেল একটি করে উইকেট ভাগ করে নেন।

অথচ এই টেস্টের প্রথম দুদিনের লাগাম ছিল শ্রীলঙ্কারই হাতে। যেখানে পাকিস্তান নিজেদের প্রথম ইনিংসে ১৯১ করে গুটিয়ে গেলে লঙ্কানরা জবাবে ২৭১ করে। তবে পাকিস্তান নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে শান মাসুদ, আবিদ আলী, অধিনায়ক আজহার আলী ও বাবর আজমের সেঞ্চুরিতে তিন উইকেট হারিয়ে ৫৫৫ রানের বিশাল সংগ্রহ করে ইনিংস ঘোষণা করে।

দুই টেস্টেই সেঞ্চুরি করে অনেক রেকর্ডের মালিক হওয়া আবিদ আলী ম্যাচ সেরার পাশাপাশি সিরিজ সেরাও হন

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ