কক্সবাজারে অপহরণের ২৫ দিন পর যুবকের লাশ উদ্ধার

প্রকাশিতঃ ৮:৪৯ অপরাহ্ণ, সোম, ২৫ মে ২০

গোলাম আজম খান, কক্সবাজার : অপহরণের ২৫ দিন পর গহীন অরণ্য থেকে মাটির নীচে পুঁতে রাখা যুবকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

রোববার (২৪মে) বিকাল সাড়ে ৫ টার দিকে কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলার পালংখালীর গহীন অরণ্যে মাটিতে পুঁতে রাখা তার লাশ উদ্ধার করে টেকনাফের হোয়াইক্যং ফাঁড়ি পুলিশ। উদ্ধারকৃত ও নিহত যুবক হচ্ছে টেকনাফের হোয়াইক্যং ইউনিয়নের মিনাবাজার এলাকার মো. হোসেনের ছেলে মোহাম্মদ শাহেদ (২৬)।

গত ২৯ এপ্রিল রাতে মিনাবাজারের পাহাড়ী এলাকা থেকে ধান ক্ষেত পাহাড়া দেয়ার সময় শাহেদ সহ ৩জনকে অপহরণ করে নিয়ে যায় রোহিঙ্গা হাকিম ডাকাতের বাহিনী। এর দুইদিন পর অপহৃত আক্তারুল্লাহ নামে এক যুবককে হত্যা করে য়াইক্যংয়ের উনচিপ্রাং এলাকায় পাহাড়ের কাছে লাশ ফেলে দেয় হাকিম বাহিনী। আক্তারুল্লাহকে হত্যার পর ফোন করে হত্যার কথা স্বীকার করে শাহেদসহ দুইজনের জন্য ২০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করতে থাকে হাকিম। এসময় অপহৃতদের উদ্ধারে মানববন্ধন পালন করে স্থানীয়রা।

পুলিশ ও স্থানীয় লোকজন কয়েকদফা পাহাড়ে অভিযান চালালেও অপহৃত কাউকে উদ্ধার কিংবা ডাকাত দলের কাউকে আটক করতে পারেনি। একপর্যায়ে রবিবার সকালে ইদ্রিস নামে অপহৃতদের একজন পালিয়ে আসে। সে জানায় শাহেদকে হত্যা করে পাহাড়ে পুঁতে ফেলে ডাকাতরা। পরে তার দেখানো পথে অভিযান চালিয়ে রবিবার বিকালে নিহত শাহেদের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

হোয়াইক্যং পুলিশ ফাঁড়ীর ইনচার্জ মশিউর রহমান জানান, পালংখালীর গহীন পাহাড়ে কুইচ্ছার জোড়া নামক এলাকা থেকে নিহতে লাশ উদ্ধার করা হয়। সুরতহাল রিপোর্ট তৈরীর পর নিহতের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। চারদিন আগে তাকে গুলি করে হত্যা করে লাশ মাটিতে পুতে ফেলে দস্যূ বাহিনী।

টেকনাফ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা প্রদীপ কুমার দাশ জানান, ‘হাকিম ডাকাতের আস্তানা থেকে একজন জীবিত ফিরে আসা ও লাশ উদ্ধারসহ সব কিছু নিয়ে পুলিশ হাকিমের অবস্থান চিহ্নিত করতে জোর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।’

বর্তমানে শাহেদের লাশ পাওয়ার পর সর্বত্র শোকের ছায়া নেমে এসেছে। তার পরিবারে চলছে শোকের মাতম।

সময় জার্নাল/

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।