করোনাভাইরাসের মাঝেই কসোভোতে সরকার পতন

প্রকাশিতঃ ৭:৪১ অপরাহ্ণ, রবি, ২৯ মার্চ ২০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : করোনাভাইরাস সংকটের মাঝেই সরকার পতন হয়েছে ইউরোপের দেশ কসোভোয়। মহামারী প্রতিরোধ নিয়ে কয়েকদিন ধরে ক্ষমতাসীন জোট সরকারের অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্বের জেরে বুধবার সরকারের পতন ঘটে।

প্রধানমন্ত্রী আলবিন কুর্তির বিরুদ্ধে পার্লামেন্টে শরিক দল এলডিকের একজন সদস্যের উত্থাপিত অনাস্থা ভোটে সরকারের পতন ঘটে। বেশ কদিন ধরেই স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে বরখাস্তের জের ধরে জোটের মধ্যে টানাপোড়েন চলছিল। খবর বিবিসির

তবে নতুন করে সরকার গঠন না হওয়া পর্যন্ত আলবিন কুর্তি তত্ত্বাবধায়ক সরকারের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন।

এলডিকের অভিযোগ, তাদের দলের একজন মন্ত্রীকে প্রধানমন্ত্রী বরখাস্ত করতে যাচ্ছেন অথচ জোটের সঙ্গে আলোচনা করেননি। এটা কোয়ালিশন সরকারের নীতিমালার লঙ্ঘন।

প্রধানমন্ত্রীকে বরখাস্ত করা নিয়ে প্রায় ১২ ঘণ্টার তুমুল বিতর্কের পর বুধবার সন্ধ্যায় ভোটাভুটি হয়। এতে সরকারের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রকাশ করে ভোট দেন ১২০ জন এমপির মধ্যে ৮২ জন।

শপথগ্রহণের মাত্র দু’মাসের মাথায় সরকারের পতন হলো। এর ফলে করোনার মতো বৈশ্বিক মহামারী প্রতিরোধে অনিশ্চয়তার মুখে পড়েছে দেশটি।

কসোভা স্বাস্থ্য ইন্সটিটিউটের বরাত দিয়ে খবরে বলা হয়, কসোভাতে এ পর্যন্ত ৭০ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। এদের মধ্যে এখন পর্যন্ত একজনের মৃত্যু হয়েছে।

ইউরোপের সর্বশেষ স্বাধীন মুসলিম দেশ, বলকান অঞ্চলের রাষ্ট্র কসোভা। দেশটিতে প্রায় ২০ লাখ মানুষ বাস করেন।

কসোভো আগে সার্বিয়ার একটি প্রদেশ ছিলো। প্রদেশটি ১৯৯৯ সাল থেকে জাতিসংঘ প্রশাসনের তত্ত্বাবধানে রয়েছে। ২০০৮ সালের ফেব্রুয়ারিতে কসোভো স্বাধীনতা ঘোষণা করে।

সময় জার্নাল/

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ