করোনাভাইরাসে এস আলম গ্রুপের পরিচালকের মৃত্যু

প্রকাশিতঃ ৯:৪১ পূর্বাহ্ণ, শনি, ২৩ মে ২০

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এস আলম গ্রুপের পরিচালক মোরশেদুল আলম ইন্তেকাল করেছেন। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন।  শুক্রবার দিবাগত রাত পৌনে ১১টার দিকে চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের আইসিইউ-তে তিনি মারা যান।  বেসরকারি আর্থিক প্রতিষ্ঠান এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংকেরও পরিচালক ছিলেন মোরশেদুল আলম।

হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. আব্দুর রব জানান, আগেরদিন বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মোরশেদুল আলমকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার রাত পৌনে ১১টার দিকে তিনি মারা যান। তিনি আগে থেকেই হার্টের রোগী ছিলেন। তাঁর হার্টে রিং পড়ানো ছিল।

উল্লেখ্য, মরহুম মোরশেদুল আলম এস আলম গ্রুপের কর্ণধার সাইফুল আলম মাসুদের বড় ভাই। বিবাহিত জীবনে তিন সন্তানের জনক মোরশেদুল আলম সীতাকুণ্ড আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য দিদারুল আলমের বেয়াই।

এস আলম পরিবার সূত্রে জানা গেছে, সাধারণ ছুটি ঘোষণার পর থেকে পরিবারের সবাই বাসাতেই ছিলেন। বাইরে যাননি। এরপরও শরীরে হালকা জ্বর দেখা দিলে গত ১৬ মে পরিবারের বেশ কয়জনের নমুনা দেয়া হয়। ১৭ মে পাওয়া নমুনা পরীক্ষার রিপোর্টে দেশের অন্যতম শীর্ষস্থানীয় শিল্প প্রতিষ্ঠান এস আলম গ্রুপের চেয়ারম্যান ও ম্যানেজিং ডিরেক্টর সাইফুল আলম মাসুদের পাঁচ ভাইয়ের শরীরে করোনা সংক্রমণ শনাক্ত হয়। এর মধ্যে মোরশেদুল আলমও ছিলেন। প্রথমে তারা হোম আইসোলেশনে থাকলেও অবস্থার অবনতি হওয়ায় মোরশেদুল আলমকে জেনারেল হাসপাতালের আইসিইউ-তে স্থানান্তর করা হয়। শুক্রবার রাতে তিনি মারা যান। করোনায় আক্রান্ত অপর চার ভাই বাসায় আইসোলেশনে রয়েছেন।

 

মারা যাওয়ার আড়াই ঘন্টার মধ্যেই মোরশেদুল আলমের জানাজা ও দাফন সম্পন্ন

করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়ার আড়াই ঘন্টার মধ্যেই এস আলম গ্রুপের পরিচালক মোরশেদুল আলমের জানাজা ও দাফন সম্পন্ন হয়েছে। রাত দেড়টার দিকে পটিয়া পৌর সদরে নিজ বাড়ির পারিবারিক কবস্থানে তাকে দাফন করা হয়। স্বাস্থ্য বিধি মেনে মোরশেদুল আলমের জানাজায় গ্রামবাসী ও স্বজনরা অংশ নেন।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।