করোনার অস্থায়ী হাসপাতালে কারিগরি সহযোগিতা দেবে আইইবি

প্রকাশিতঃ ৮:৩১ পূর্বাহ্ণ, শনি, ২৭ জুন ২০

মহামারি করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় নতুন কোন অস্থায়ী হাসপাতাল করতে চাইলে কারিগরি সহায়তা দেবে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশ (আইইবি)।

শুক্রবার বিকেলে আইইবি এবং ইন্টারন্যাশনাল কাউন্সিল অব ইঞ্জিনিয়ার্স, অস্ট্রেলিয়া (আইসিইএ) যৌথ আয়োজনে টেলিকনফারেন্স ওয়েবিনারে কোভিড-১৯ পরবর্তী পুনরুদ্ধার শীর্ষক আলোচনায় আইইবি’র নেতৃবৃন্দ একথা বলেন।

নেতৃবৃন্দ বলেন, ‘করোনা মোকাবেলায় সরকারি অথবা বেসরকারিভাবে নতুন কোন অস্থায়ী হাসপাতাল তৈরি করতে চাইলে এবং আইইবি’র কাছে কারিগরি সহায়তা চাইলে সব ধরণের কারিগরি সহায়তা আমরা দেব।’

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আইইবি’র প্রেসিডেন্ট প্রকৌশলী মো. আবদুস সবুর এবং বিশেষ অতিথি ছিলেন আইইবি’র সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী খন্দকার মনজুর মোর্শেদ।

অনুষ্ঠানে আইসিইএ’র সভাপতি প্রকৌশলী নুসরাত ইসলামের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন আইসিইএ’র প্রধান উপদেষ্টা প্রকৌশলী খন্দকার সালেক সুফি, সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী মেহেদী হাসান, সহসভাপতি ড. নরোত্তম দাস এবং আইইবি’র কম্পিউটার ডিভিশনের সেক্রেটারি প্রকৌশলী রনক আহসান।

অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, কোভিড-১৯ এর প্রাদুর্ভাবের প্রথম দিকে পৃথিবী অনেকটা স্থবির হয়ে পড়েছিল। প্রযুক্তির সহায়তায় বিশ্ব এখন স্থবিরতা কিছুটা হলেও কাটিয়ে উঠতে সক্ষম হয়েছে। এই মহামারি করোনা ভাইরাস কখন পৃথিবী থেকে একেবারে নির্মুল হবে তা এখনো বলা যাচ্ছে না। তবে আশা করা যাচ্ছে খুব তাড়াতাড়ি করোনা ভাইরাসের ভ্যাকসিন আবিস্কার হয়ে যাবে।

তারা বলেন, ‘এই মহামারি পৃথিবী থেকে পুরোপুরি বিদায় নিলে মানুষের জীবন যাত্রায় অনেক পরিবর্তন আসবে। তখন কিভাবে দ্রুত অর্থনীতির চাকা সচল করা যায় সেই পরিকল্পনা এখন থেকেই করতে হবে। করোনা ভাইরাস পরবর্তী সময়ে যেন বাংলাদেশের অর্থনীতিও খুব দ্রুততার সাথে এগিয়ে যায় সেই লক্ষ্যে যৌথ ভাবে কাজ করবে আইইবি এবং আইসিইএ।’

এছাড়া দেশে সকল উন্নয়ন প্রকল্পের সব টেকনিক্যাল সেক্টরে প্রকৌশলীদের নিয়ে সমন্বিতভাবে কাজ করার আহবান জানানো হয়।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।