করোনায় কেড়ে নিল ভাইরাস গবেষকের প্রাণ

প্রকাশিতঃ ২:০১ অপরাহ্ণ, বুধ, ১ এপ্রিল ২০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: চীনের উহান থেকে বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস। এ ভাইরাস ইতোমধ্যে ২ শতাধিক দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে। করোনায় বিশ্বব্যাপী প্রতিনিয়তই বাড়ছে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা।

এদিকে, করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হল ভাইরাস বিশেষজ্ঞ গীতা রামজি। ভারতীয় বংশোদ্ভূত এই ভাইরাস গবেষেকের মৃত্যু হয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকায়। কিছুদিন আগে লন্ডন থেকে দক্ষিণ আফ্রিকায় ফিরেন তিনি। কোভিড-১৯ পজেটিভ পাওয়া যায় তার শরীরে।

দক্ষিণ আফ্রিকার মেডিকেল রিসার্চ কাউন্সিলের এইচআইভি প্রিভেনশন রিসার্চের বিভাগীয় কর্মকর্তা ছিলেন ৬৪ বছর বয়সী গীতা রামজি। সংস্থাটির সিইও গ্লেনডা গ্রে জানিয়েছেন, প্রফেসর রামজির মৃত্য়ুতে তারা শোকাহত। কোভিড-১৯ উপর্সগ নিয়ে কয়েকদিন আগে হাসপাতালে ভর্তি হন।

উল্লেখ্য, ২০০৮ সালে এইচআইভি নিয়ে গবেষণায় নতুন দিশা দেখান গীতা রামজি। এই কৃতিত্বের জন্য লিসবনের প্রথম নারী এইচআইভি গবেষক হিসেবে তাকে সম্মাননা দেয় ইউরোপিয়ান ডেভালপমেন্ট ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালস পার্টনারশিপ (ইডিসিটিপি)।

দক্ষিণ আফ্রিকায় নারীদের এইডস সচেতনতা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে কাজ করেছেন তিনি। তার কথায়, ‘এইচআইভির মতো মহামারী থেকে বাঁচতে বিশ্বকে প্রত্যয়ের সঙ্গে লড়তে হবে।’ এইচআইভি গবেষণায় ল্যান্ডমার্ক তৈরি করেছিলেন গীতা। কিন্তু তার লড়াই থামিয়ে দিল করোনাভাইরাস।

করোনাভাইরাসে এ পর্যন্ত দক্ষিণ আফ্রিকায় মৃত্যু হয়েছে ৫ জনের এবং আক্রান্ত ১৩৫০ জন।

এদিকে, মঙ্গলবার দক্ষিণ আফ্রিকার সরকার ঘোষণা করে, ১০ হাজারের এক দল তৈরি করা হচ্ছে। যারা বাড়ি বাড়ি গিয়ে করোনা পরীক্ষা করবে। এছাড়াও দক্ষিণ আফ্রিকায় ২১ দিনের লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে।

এ পর্যন্ত সারা বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৮,৫৯,৯২৯ জন এবং মারা গেছে ৪২,৩৪০ জন।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ