করোনায় প্রধানমন্ত্রীর চাচির মৃত্যু

প্রকাশিতঃ ৯:১৮ পূর্বাহ্ণ, মঙ্গল, ১৭ নভেম্বর ২০

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছোট ভাই শেখ আবু নাসেরের স্ত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার চাচি শেখ রাজিয়া নাসের করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। সোমবার রাতে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। তাঁর বয়স হয়েছিল ৮৩ বছর।

করোনায় আক্রান্ত হয়ে অসুস্থ হয়ে পড়লে কিছুদিন আগে রাজিয়া নাসেরকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বঙ্গবন্ধু পরিবারের এই অভিভাবকের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

মরহুমার পাঁচ ছেলের মধ্যে বড় ছেলে শেখ হেলাল উদ্দিন বাগেরহাট-১ আসনের সংসদ সদস্য। আরেক ছেলে শেখ সালাউদ্দিন জুয়েল খুলনা-২ আসনের সংসদ সদস্য। তাঁর নাতি ও শেখ হেলালের ছেলে শেখ শারহান নাসের তন্ময় বাগেরহাট-২ আসনের আসনের সংসদ সদস্য।

শেখ রাজিয়া নাসেরের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছেন সংসদ সদস্য শেখ শারহান নাসের তন্ময়, আওয়ামী লীগের সহ-দপ্তর সম্পাদক সায়েম খান ও সংসদ সদস্য শেখ হেলাল উদ্দিনের একান্ত সচিব (পিএস) এমডি ওয়ালিদ।

শেখ শারহান নাসের তন্ময় জানান, তাঁর দাদি বেশ কিছু দিন ধরে বার্ধক্যজনিত নানা সমস্যায় ভুগছিলেন। পরে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে অনেক পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর করোনা ধরা পড়ে। পরে দাদিকে হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে নেওয়া হয়।

এমডি ওয়ালিদ বলেন, বার্ধক্যজনিত নানা সমস্যায় ভুগছিলেন শেখ রাজিয়া নাসের। এজন্য ৫ নভেম্বর তাঁকে এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে নমুনা পরীক্ষা করলে তাঁর করোনা ধরা পড়ে। আজ রাত সাড়ে ৮টার দিকে তিনি মারা যান।

এখনো শেখ রাজিয়া নাসেরের জানাজার সময় নির্ধারণ হয়নি। শেখ রাজিয়া নাসেরের মৃত্যুর সংবাদে খুলনা ও বাগেরহাট জুড়ে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আপন চাচি ও শেখ হেলালের মায়ের মৃত্যুতে তাৎক্ষণিকভাবে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম, খুলনা সিটি করপোরেশনের মেয়র তালুকদার আবদুল খালেক, নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী কর্নেল (অব.) জাহিদ ফারুক ও উপমন্ত্রী এ কে এম এনামুল হক শামীম, বন, পরিবেশ ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক উপমন্ত্রী হাবিবুন নাহার তালুকদার, বাগেরহাট জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ কামরুজ্জামান টুকু, বাগেরহাটের জেলা প্রশাসক মো. মামুনুর রশীদ, পুলিশ সুপার পংকজ চন্দ্র রায়, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এইচএম বদিউজ্জামান সোহাগ, বাগেরহাট প্রেসক্লাবের সভাপতি অ্যাডভোকেট মো. মোজাফফর হোসেন, সাধারণ সম্পাদক ও বাগেরহাট পৌর প্যানের মেয়র তালুকদার আব্দুল বাকী, বাগেরহাট ফাউন্ডেশনের সাধারণ সম্পাদক আহাদ উদ্দিন হায়দার প্রমুখ।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।