করোনায় স্বামীর মৃত্যু বলে দাফন, ৮ দিন পর লাশ উত্তোলন

প্রকাশিতঃ ৮:৪১ অপরাহ্ণ, সোম, ৪ মে ২০

চাঁদপুর প্রতিনিধি: চাঁদপুরে করোনায় প্রবাসী খলিলুর রহমান মিন্টু মিজি মৃত্যুর কথা বলে দাফন করা হয়। পরে স্ত্রী ও শ্যালকের বিরুদ্ধে নিহতের বোন হত্যার অভিযোগে মামলা করেন। আটদিন পর কবর মৃতদেহ উত্তোলন করে প্রশাসন।

সোমবার দুপুরে চাঁদপুর সদর উপজেলা ৯ নং বালিয়া ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ড উত্তর বালিয়া মিজি বাড়ির কবরস্থান থেকে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রে ইমরান হোসেন সজিবের উপস্থিতিতে লাশ উত্তোলন করা হয়।

তদন্তকারী কর্মকর্তা উপপরিদর্শক সিরাজুল ইসলাম জানান, প্রবাসী মৃত্যুর ঘটনায় তার বোন শেফালী বেগম বাদী হয়ে চাঁদপুর মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন। এই ঘটনায় আদালতের নির্দেশে আমরা লাশ উত্তোলন করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করেছি। রিপোর্ট অনুযায়ী পরবর্তীতে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

জানা গেছে, গত ২৪ ডিসেম্বর বাংলাদেশে আসার পরেই পরিবার নিয়ে শহরের মমিনপাড়া বহদার বাড়ি রোড এলাকায় নিজ বাড়িতে বসবাস করেন। গত ২৬ এপ্রিল হঠাৎ করে তিনি অসুস্থ হয়েছে বলে স্ত্রী লায়লী বেগম ও শ্যালক সোহাগ জমাদার ঢাকার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হন। পথিমধ্যেই মতলব মুন্সিরহাট এলাকায় মৃত্যুবরণ করেন বলে জানা যায়। তারা তাকে ঢাকা না নিয়ে ফিরে এসে চাঁদপুর বারাকাহ হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত বলে জানান। লায়লী বেগম ও তার ভাই সোহাগ সহ রাতেই তড়িগড়ি করে মিন্টু মিজির লাশ তার গ্রামের বাড়িতে দাফন করে।

এদিকে বোন লায়লী বেগম বলছেন, ভাইয়ের করোনায় মৃত্যু হয়েছে বলে জানায়। আমাদের পুরুষ কেউ না থাকায় আসা হয়নি। পরে জানতে পারি ভাইয়ের শরীরে জখমের চিহ্ন ছিল।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ইমরান হোসেন সজিব বলেন, এই ঘটনায় আদালতের নির্দেশে লাশটি উত্তোলন করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ