করোনা পরিস্থিতি: বেটার লেট দ্যান নেভার!

প্রকাশিতঃ ৭:২৬ পূর্বাহ্ণ, শনি, ২১ মার্চ ২০

ড. আবুল হাসনাৎ মিল্টন, চেয়ারম্যান, এফডিএসআর:

চীনের হুয়ানে কোভিড১৯ রোগী ধরা পড়ে গত ডিসেম্বরের শেষ দিকে। পুরো জানুয়ারী মাস জুড়ে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে এই রোগটি ছড়াতে থাকে। ফেব্রুয়ারী জুড়ে বিশেষজ্ঞরা পৃথিবীব্যাপী এই রোগের মহামারী নিয়ে নানা আশংকা ব্যক্ত করতে থাকেন। এগারোই মার্চ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা কোভিড১৯ রোগটিকে প্যানডেমিক ঘোষণা করেন।

পৃথিবীর অনেক দেশ জানুয়ারী – ফেব্রুয়ারী জুড়ে নিজেদের দেশের সম্ভাব্য কোভিড১৯ ঝুঁকি বিবেচনায় সাধ্যমত ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করেছেন। নিজেদের দেশের জন্য ‘emergency response plan’ ঠিক করেছেন।

আমরা এসময়ে ‘denial state’ এ ছিলাম। আমাদের ‘গুরুত্বপূর্ণদের’ ধারণা ছিল, করোনা আমাদের কিছুই করতে পারবে না। আমরা আত্মতুষ্টিতে মগ্ন ছিলাম। তেমন কোন আউটপুট ছাড়াই আমরা কেউ কেউ মিটিংয়ের পর মিটিং করেছিলাম। বাংলাদেশে সরকারী ভাবে প্রথম কোভিড কেস সনাক্ত হয় ৮ মার্চ। গত ১০ মার্চ স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে ডাক্তারসহ সকল স্বাস্থ্যকর্মীদের জন্য পিপিই কেনার লক্ষ্যে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে চিঠি লেখা হয়। সেই চিঠির ব্যাপারে আজ ঢাকায় মিটিং হবে। এই একটি ঘটনাই বলে দেয়, আমাদের প্রস্তুতি কেমন ছিল, উদাসীনতা কোন পর্যায়ের ছিল!

পর্যাপ্ত সময় পেয়েও আমরা যথাযথ প্রস্তুতি নিতে ব্যর্থ হয়েছি। আমরা পরিস্থিতির গুরুত্ব অনুধাবন করতে ও করাতে ব্যর্থ হয়েছি। আমাদের এই সীমাবদ্ধতা স্বীকার করেই করণীয় নির্ধারণ করতে হবে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের দুয়েকজন জুনিয়র কর্মকর্তাকে দিয়ে টেলিভিশন বা ফেসবুকে মিথ্যাচার করলেই সমস্যার সমাধান হবে না। সত্যকে অস্বীকার করলে কিংবা প্রকৃত তথ্য আড়াল করলেই সম্ভাব্য কোভিড১৯ ঝড় থেমে থাকবে না। আমাদের উদাসীনতায় লোকালয়ে ইতিমধ্যে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে।

সম্ভাব্য কোভিড১৯ ঝড় থামাতে হলে যা যা করার দরকার, তা-ই করতে হবে। আমাদের জন্য এখন প্রযোজ্য হলো, বেটার লেট দ্যান নেভার।

গুড লাক বাংলাদেশ।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ