করোনা ভাইরাস সম্পর্কে প্রচলিত কিছু ভুল ধারণা বনাম বাস্তবতা

প্রকাশিতঃ ৫:৪৮ অপরাহ্ণ, বুধ, ২৭ মে ২০

ডা. আহসিনা জাহান লোপা

১) ধারণা : এটি সাধারণ ফ্লু ভাইরাসের রূপান্তরিত সংস্করণ৷
সত্যতা : এটি একটি করোনা ভাইরাস যা ফ্লু ভাইরাসের চেয়ে ১০ গুণ বেশি বিপজ্জনক।

২) ধারণা : এটি ভাইরাসটি মনুষ্য তৈরি রাসায়নিক অস্ত্র।
সত্যতা : এটি প্রকৃতির রূপান্তরিত একটি ভাইরাস।

৩) ধারণা : অ্যালকোহল সেবন করলে করোনা ভাইরাস থেকে বাঁচতে সাহায্য করবে।
সত্যতা : না। উল্টো রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা কমিয়ে আরো ক্ষতি করতে পারে।

৪) ধারণা : রসুন এবং আদা খেলে ভাইরাস থেকে রক্ষা পাওয়া যাবে।
সত্যতা : না। এগুলি কেবল রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়।

৫) ধারণা : আমাদের কোনও সুস্থ ব্যক্তির কাছ থেকে করোনার সংক্রমণের ঝুঁকি নেই।
সত্যতা : যে কোনও সুস্থ ব্যক্তি লক্ষণ ছাড়াই বাহক হতে পারে, সামাজিক দূরত্ব আবশ্যক।

৬) ধারণা : কোভিড-১৯ একটি বায়ুবাহিত সংক্রমণ।
সত্যতা : এটি একটি সংক্রমণ যা হাচি, কাশি ও স্পর্শের মাধ্যমেও ছড়িয়ে যেতে পারে।

৭) ধারণা : হোমপ্যাথিক/চাইনিজ ওষুধগুলি কোভিড-১৯ নিরাময় করতে পারে।
সত্যতা: না।

৮) ধারণা : স্যানিটাইজার ব্যবহার করলেই হাত ধোয়া কার্যকর হয়ে যায়।
সত্যতা : না। হাত ধোয়ার উপযুক্ত পদক্ষেপগুলি গুরুত্বপূর্ণ।

৯) ধারণা : প্রত্যেকেরই উচিত সার্জিকাল মাস্ক পরা।
সত্যতা : কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত রোগীর সংস্পর্শে না থাকা সাধারণ মানুষের জন্য কাপড়ের মুখোশই যথেষ্ট। তবে কাশি, সর্দি এবং জ্বরের লক্ষণযুক্ত ব্যক্তিকে অবশ্যই সরকারী জায়গায় বা হাসপাতালে বের হওয়ার সময় অবশ্যই সার্জিক্যাল মাস্ক পরতে হবে। আদর্শভাবে তাদের অবশ্যই পরিবারের অন্য সদস্যদের কাছ থেকে যথাযথ সামাজিক দূরত্বসহ নিজস্ব সাবধানতা অবলম্বন করে বাড়িতে থাকতে হবে।

১০) ধারণা : N-95 মাস্ক প্রত্যেকের ব্যবহার করা উচিত।
সত্যতা : অপ্রতুলতার জন্য N-95 মাস্ক মূল্যবান সম্পদ এবং কেবল সেই স্বাস্থ্যসেবা কর্মীদের দ্বারা ব্যবহার করা উচিত যারা কোভিড-১৯ রোগীদের যত্ন নিচ্ছেন।

১১) ধারণা : করোনাভাইরাস গ্রীষ্মের গরমে টিকে থাকবে না।
সত্যতা : এটি সমর্থন করার জন্য কোনও ডাটা নেই। নভেল করোনাভাইরাস ৫৬° সেলসিয়াসের উপরে তাপমাত্রায় মারা যায়। গরম আবহাওয়াযুক্ত দেশগুলি কোভিড-১৯ এর ক্ষেত্রে রিপোর্ট করেছে।

১২) ধারণা : অ্যান্টিবায়োটিক নতুন করোনাভাইরাস প্রতিরোধ এবং চিকিৎসায় কার্যকর।
সত্যতা : না। অ্যান্টিবায়োটিকগুলি কেবল ব্যাকটিরিয়ার বিরুদ্ধে কাজ করে।

১৩) ধারণা : অল্প বয়সী লোকদের করোনাভাইরাস আক্রান্ত করতে পারে না।
সত্যতা : যে কোন বয়সের লোক করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হতে পারে।

১৪) ধারণা : নিয়মিত আপনার নাক স্যালাইন দিয়ে ধোয়া এবং ক্লোরহেক্সিডিন দ্রবণ দিয়ে গড়গড়া করলে নতুন করোনভাইরাস সংক্রমণ রোধ করতে সহায়তা করবে।
সত্যতা : না। দেখা গেছে যে এটি সাধারণ সর্দি থেকে সেরে উঠতে সহায়তা করে। তবে করোনা ভাইরাসের উপর কোনও প্রতিরোধমূলক প্রভাব নেই।

১৫) ধারণা : নিউমোনিয়ার বিরুদ্ধে ভ্যাকসিনগুলি আপনাকে নতুন করোনাভাইরাস সংক্রমণের বিরুদ্ধে সুরক্ষা দেয়।
সত্যতা : না। তবে ঝুঁকিতে থাকা লোকদের চিকিৎকের পরামর্শ অনুসারে অন্যান্য ভ্যাকসিন চালিয়ে যাওয়া উচিত।

১৬) ধারণা : আপনার সারা শরীরে অ্যালকোহল বা ক্লোরিন স্প্রে করলে নতুন করোনভাইরাসকে ধ্বংস করা যাবে।
সত্যতা : ভাইরাস যা শরীরে প্রবেশ করেছে তা অ্যালকোহল বা ক্লোরিন স্প্রে করে মারা যাবে না। এগুলি হল অ্যারোসোল উৎপাদনের পদ্ধতি যা রোগটি ছড়িয়ে দিতে পারে।

১৭) ধারণা : শরীরের তাপমাত্রা পরিমাপক স্ক্যানারগুলি নতুন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ব্যক্তিদের সনাক্ত করতে কার্যকর।
সত্যতা : না। তারা কেবল জ্বর সনাক্ত করে।

১৮) ধারণা : আল্ট্রা ভায়োলেট রশ্মি করোনাভাইরাসকে হত্যা করে।
সত্যতা : চিকিৎসা সরঞ্জাম জীবাণু মুক্ত করতে এর কিছু ভূমিকা রয়েছে। তবে এটি মানুষের উপর ব্যবহারের উপযোগী নয়।

১৯) ধারণা : হ্যান্ড ড্রায়ারগুলি করোনাভাইরাস উপন্যাসে কার্যকর।
সত্যতা : না। হ্যান্ড ড্রায়ারগুলি এড়ানো ভাল কারণ এরা ভাইরাস ছড়িয়ে দিতে পারে।

২০) ধারণা : মশার কামড়ের মাধ্যমে করোনাভাইরাস সংক্রমণ হতে পারে।
সত্যতা : না।

২১) ধারণা : আমি যদি ১০ সেকেন্ডের বেশি সময় ধরে আমার দম ধরে রাখতে পারি তবে আমার করনা ভাইরাস সংক্রমণ হয়নি বলে ধরে নেয়া হবে।
সত্যতা : আপনি এখনও সংক্রমিত হতে পারেন। আপনার নিউমোনিয়া হওয়ার পরেই শ্বাস ধরে রাখা এবং শ্বাসকষ্টের সমস্যা দেখা দেয়।

২২) ধারণা : গরম পানিতে গোসল করলে নতুন করোনোভাইরাস রোগের প্রতিরোধ হবে।
সত্যতা : না। এটি নিজেকে জীবাণু মুক্ত করার উপায় মাত্র।

২৩) ধারণা : ঠান্ডা আবহাওয়া এবং তুষারপাত করোনাভাইরাস মেরে ফেলতে পারে।
সত্যতা : না, তবে কোভিড-১৯ এইসব আবহাওয়ায় আরও খারাপ হতে পারে।

২৪) ধারণা : করোনাভাইরাস নিরাময়ের জন্য ভ্যাকসিন পাওয়া যায়।
সত্যতা : এখনও পর্যন্ত না।

২৫) ধারণা : বিদেশ থেকে আসা পণ্য ক্রয় করলে কোন ব্যক্তি কোভিড-১৯ দ্বারা আক্রান্ত হতে পারে।
সত্যতা : না।

২৬) ধারণা : ভালভাবে রান্না করা মুরগি এবং মাংস খেলেও নতুন করোনভাইরাস সংক্রমণে আক্রান্ত হতে পারে।
সত্যতা : না। অবশ্যই না।

২৭) ধারণা : ৫-জি মোবাইল নেটওয়ার্ক নতুন করোনাভাইরাস সংক্রমণ ছড়িয়ে দিতে পারে।
সত্যতা : না। ভাইরাসগুলি রেডিও তরঙ্গ/মোবাইল নেটওয়ার্কগুলিতে ভ্রমণ করে না।

২৮) ধারণা : নতুন করোনাভাইরাসটি আক্রান্ত হওয়া মানেই আপনি তা সারাজীবন বয়ে বেড়াবেন।
সত্যতা : না। ৮০% এরও বেশি রোগী লক্ষ্মণমুক্ত এবং নিজের থেকে সেরে উঠছেন। তবে বিভিন্ন স্ট্রেইন থেকে গৌণ সংক্রমণ সম্ভব।

২৯) ধারণা : কোভিড-১৯ ঠিক ফ্লুর মতো।
সত্যতা : না। কোভিড-১৯ সাধারণত ফ্লু জাতীয় উপসর্গ যেমন- ব্যথা, জ্বর এবং কাশি হিসেবে উপস্থাপন করে। তবে এটি সাধারণ ফ্লুর চেয়ে মারাত্মক এবং মৃত্যুর হার বেশি।

৩০) ধারণা : কোভিড-১৯ হলে প্রত্যেকে মারা যায়।
সত্যতা : না। কোভিড-১৯ ৮১ % সাধারণত হালকা হয়। মৃত্যুর হার এর মধ্যে প্রায় ১ থেকে ৩ শতাংশ।

৩১) ধারণা : পোষা প্রাণী ভাইরাস ছড়াতে পারে।
সত্যতা : কুকুর এবং বিড়ালের মতো পোষা প্রাণীর সংক্রমণ এখনও অজানা। তবে অতিরিক্ত সতর্কতার প্রয়োজনীয়তা আবশ্যক।

৩২) ধারণা : ভিটামিন-সি কোভিড-১৯ সংক্রমণ থেকে রক্ষা করতে পারে।
সত্যতা : এ ধরেন কোন সত্যতা নেই।

সংকলিত এবং অবদান
ডা. রাজেশ চন্দ্র মিশ্র
ডা. ইয়াশ জাভেরী
ডা. সিমন্ত ঝা
ডা. কানওয়ালপ্রীত সোধি
ডা. গুঞ্জন চঞ্চলানী
ডা. রুছিরা খসনে
ডা. বিন্দু মুলাকাভালুপিল

লেখিকা : ইনচার্জ (আইসিইউ), এম এইচ শমরিতা হাসপাতাল এবং মেডিকেল কলেজ, ঢাকা।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।