কালিগঞ্জে পাকাঘর নির্মানকে কেন্দ্র করে হামলায় আহত ২

প্রকাশিতঃ ৯:১২ অপরাহ্ণ, বৃহঃ, ২৬ ডিসেম্বর ১৯

কালিগঞ্জ প্রতিনিধি : কালিগঞ্জ উপজেলার দূদলী গ্রামে গোলাম মোস্তফার নিজস্ব জমিতে পাকাঘর বাঁধাকে কেন্দ্র করে স্থানীয় কতিপয় ব্যাক্তিদের মারপিট ও চাঁদাবাজী অভিযোগ পাওয়া গেছে।

বুধবার (২৫ ডিসেম্বর) বিকালে দূদলী নতুন হাটখোলা নামক স্থানে এ ঘটনাটি ঘটে। মারপিটের ঘটনায় গোলাম মোস্তফা ও শিমুরেজা কলেজের প্রভাষক আবু হাসানকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেছে।

এ ব্যাপারে উপজেলার দুদলী গ্রামের আহম্মাদ আলীর পুত্র গোলাম মোস্তফা বাদী হয়ে ৫ জনকে আসামী করে কালিগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছে।

থানায় অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার পানিয়া গ্রামের নাসির উদ্দিন মোল্লার পুত্র মনিরুল ইসলাম মনি (৩৫) ও তার ভাই রনি (৩০), একই গ্রামে মাহাবুবের পুত্র সোহাগ (৩০), দুদলী গ্রামের সাকের আহমদ গাজীর পুত্র জিএম মামুন (৩০), খাজাবাড়িয়া গ্রামের আতিয়ার রহমানসহ অজ্ঞাত নামা ৮/১০ জন সংঘবদ্ধ হয়ে ভুক্তভোগী গোলাম মোস্তফার দূদলী মৌজার দীর্ঘ দিন ভোগ দখলীয় সম্পতিতে পাঁকা ঘর নির্মানের সময় আসামিরা বাঁধা দেয় এবং মোটা অংকের চাঁদা দাবি করে।

ঘটনাটি উপজেলা চেয়ারম্যান সাঈদ মেহেদী ও স্থানীয় মথুরেশপুর ইউপি চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান গাইনে কাছে মামুন গং এর বিরুদ্ধে অভিযোগ করে যে, তারা ভূমিহীন এলাকার মানুষের কাছ থেকে চাঁদা উঠাচ্ছে।

উক্ত বিষয়ে বুধবার বিকালে নতুন হাটের চাতালে উপজেলা চেয়ারম্যান ঘটনাস্থলে উভয় পক্ষকে ডেকে সালিশের মাধ্যমে মীমাংসার চেষ্ঠা করলে মামুন গং উত্তেজিত হয়ে ঘটনাটি ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার চেষ্ঠা চালায়। এক পর্যায়ে রহিমা খাতুন পা পিছলে চাতালে পড়ে যেয়ে আহত হয়। এ ঘটনাকে পুজি করে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালায়।

এদিকে উপজেলা চেয়ারম্যান সাঈদ মেহেদী ভূমিহীন দেন পূনরবাসনের জন্য সরকারের কাছে আবেদন করেছে। অথচ ভূমিহীন পূনরবাসনের নামে স্থানীয় কতিপয় ব্যাক্তি মনি, রনি ও মামুন গং বিভিন্ন ভূমিহীনদের কাছ থেকে চাঁদা উত্তোলন করে।

এ নিয়ে সাধারন মানুষের মাঝে চাপা ক্ষোভ বিরাজ করছে। এঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ