কুড়িগ্রামে বন্যার পানি কমতে শুরু করেছে, নানা সংকটে বানভাসী

প্রকাশিতঃ ৫:৫৭ অপরাহ্ণ, সোম, ৬ জুলাই ২০

রেজাউল করিম রেজা, কুড়িগ্রাম : জেলায় গত ৯দিন হতে পানিবন্ধী আছে দেড় লাখ মানুষ। বর্তমানে নদ-নদীগুলোর পানি কমতে শুরু করেছে। বিশুদ্ধ পানি, খাদ্য, পয়নিস্কাশনের স্থান, গো-খাদ্যসহ নানা সংকটে ভুগছেন বানভাসীরা।

কুড়িগ্রাম পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, ২৪ ঘন্টায় ব্রহ্মপুত্র নদের নুনখাওয়া পয়েন্টে বিপদসীমার ২৭ সেন্টিমিটার নীচ দিয়ে, ব্রহ্মপুত্র নদের চিলমারী পয়েন্টে বিপদসীমার ১৫ সেন্টিমিটার নীচ দিয়ে, তিস্তা নদীর কাউনিয়া পয়েন্টে বিপদসীমার ৪৫ সেন্টিমিটার নীচ দিয়ে এবং ধরলা নদীর সদর পয়েন্টে বিপদসীমার ১৫ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে।

কুড়িগ্রাম পানি উন্নয়ন বোর্ড নির্বাহী প্রকৌশলী আরিফুল ইসলাম জানান, “পানি বৃদ্ধি ও কমে যাওয়ায় বাঁধের ১৯টি স্থানে ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে। ভাঙ্গন এলাকাগুলোতে জরুরীভিত্তিতে কাজ শুরু করা হয়েছে।”

জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. সায়হান আলী জানান, “বন্যার পানি কমতে শুরু করেছে এ সময়ে বানভাসী মানুষের মাঝে পানি বিশুদ্ধকরণ ট্যাবলেট ও পানিবাহি রোগ রোধে ঐ সকল এলাকায় বিলিসিং পাউটার স্প্রে করার পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে।”

সময় জার্নাল/

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।