গোপালগঞ্জে ঝুঁলে গেছে করোনা ল্যাব স্থাপনের কাজ!

প্রকাশিতঃ ১০:০২ অপরাহ্ণ, রবি, ২১ জুন ২০

দুলাল বিশ্বাস, গোপালগঞ্জ : জেলায় ল্যাব স্থাপনে শেখ সায়েরা খাতুন মেডিকেল কলেজের গড়িমসির কারণে চাহিদা অনুযায়ি করোনা পরীক্ষা করা সম্ভব হচ্ছে না।

শেখ সায়েরা খাতুন মেডিকেল কলেজে ডাক্তার, টেকনিশিয়ানসহ সকল সুবিধা থাকার পরও পরীক্ষাগার স্থাপনে রাজি নয় কর্তৃপক্ষ। তারা বিষয়টি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের দিকে ঠেলে দিচ্ছে বলে জানায় গোপালগঞ্জের সিভিল সার্জন অফিসের একটি সূত্র। ফলে দিন গড়াচ্ছে আর মানুষের মধ্যে বাড়ছে হতাশা।

যদিও বঙ্গবন্ধু বিঞ্জান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত ভিসি অধ্যাপক ড. মো. শাজাহান বলেছেন, “তাদের ল্যাব স্থাপনের সক্ষমতা রয়েছে। সিদ্ধান্ত ও যন্ত্রপাতি পেলে তারা কাজ করার জন্য প্রস্তুত রয়েছেন।”

গোপালগঞ্জের সিভিল সার্জন অফিস সূত্রে জানা যায়, বর্তমানে প্রতিদিন জেলার পাঁচটি উপজেলায় মোট ৭৫টির বেশী নমুনা পরীক্ষা করা সম্ভব হচ্ছে না। অথচ দিনের পর দিন বেড়ে চলেছে আক্রান্তের সংখ্যা।

জেলা প্রশাসক শাহিদা সুলতানা বলেন, “করোনার শুরু থেকেই গোপালগঞ্জে ল্যাব স্থাপনের গুরুত্ব সম্পর্ক প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি অকর্ষণ করেছি। গোপালগঞ্জ থেকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজে বেশী নমুনা সংগ্রহ করে পাঠানোর পরও তা পরের দিনের জন্য তা ফেলে রাখা হয়। এতে অনেক সময় নমুনা নষ্ট হয়ে যায়। পরীক্ষায় ভুল রির্পোট আসছে।”

যদিও বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত ভিসি অধ্যাপক ড. মো. শাজাহান বলেছেন, তাদের পরীক্ষাগারে স্থাপনের সক্ষমতা রয়েছে। সিদ্ধান্ত ও যন্ত্রপাতি পেলে তারা কাজ করার জন্য প্রস্তুত রয়েছেন।”

গোপালগঞ্জের সিভিল সার্জান ডা. মো. নিয়াজ মোহাম্মদ বলেন, “শেখ সায়েরা খাতুন মেডিকেল কলেজে ল্যাব স্থাপনে র্কৃতপক্ষ রাজি হলেও তাদের গড়িমসিতে বিষয়টি ঝুলে গেছে।”

সময় জার্নাল/

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।