গোপালগঞ্জে ভূমি দখল ও কৃষি জমি থেকে বালু উত্তোলনের অভিযোগ

প্রকাশিতঃ ৮:০৪ অপরাহ্ণ, রবি, ১৯ জানুয়ারি ২০

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি : জেলার কাশিয়ানী উপজেলার হাতিয়াড়া গ্রামে ভূমি দখল ও কৃষি জমি থেকে বালু উত্তোলনের অভিযোগ উঠেছে। ভূমি দখল ও ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলনকারী ওই এলাকার প্রভাবশালী ব্যক্তি আব্দুল হামিদ মোল্লার ছেলে মো. ছাওবান মোল্লা। তিনি এলাকার নিরহ মানুষের জমি দখলসহ নানা অপকর্মে সদা লিপ্ত থাকে বলেও অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, স্থানীয় পেশি শক্তির দাপটে গ্রামের অসহায় দরিদ্র কৃষকদের জমি জবর দখল করে ৬০ একর জমিতে মুরগির ফার্ম ও মাছের চাষ করেছেন। অন্যদিকে কৃষি জমিতে ড্রেজার বসিয়ে বালু উত্তোলন করায় পাশে থাকা দরিদ্র কৃষকদের ফসলি জমি ভেঙ্গে ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হচ্ছে। হিন্দু অধ্যুষিত এলাকায় দাঙ্গা-হাঙ্গামা ও মিথ্যা মামলা-মোকদ্দমা করে অসহায় অনেক দরিদ্র পরিবারকে সর্বশান্ত করেছেন তিনি।

এলাকার মো. আব্দুর হামিদ মোল্লার ছেলে ছাওবান মোল্লাকে ভূমি দস্যু উল্লেখ্য করে মো. ইব্রাহিম মোল্লা গত ১৩ জানুয়ারী গোপালঞ্জের জেলা প্রশাসকের বরাবরে লিখিত অভিযোগ করেন। অভিযোগে বলেন, আমার ৪ একর ইরি ব্লোকের জমিতে জবরদখল করে মাছের চাষ করছে।

অন্যদিকে ড্রেজার দিয়ে ফসলি জমিতে বালু উত্তোলন করে দরিদ্র কৃষকের অপূরনীয় ক্ষতি করায় লিয়াকত মোল্লা, শওকত মোল্লা, শের আলী মোল্লা, হেমায়েত মোল্লা ও আফজাল মোল্লা বাদি হয়ে ছাওবান মোল্লা ও ড্রেজার ব্যবসায়ী জামাল মোল্লার বিরুদ্ধে জেলা প্রশাসক ও কাশিয়ানী উপজেলার সহকারি কমিশনার ভূমি’র কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

এ বিষয়ে ছাওবান মোল্লার মুঠোফোন (০১৭৪৩৯২৩৫০৬) কথা হলে তিনি বলেন, আমার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। আমি কারোর জমি দখল করিনি এবং কারো জমিেেত ড্রেজার মেশিনও বসাইনি।

কাশিয়ানী সহকারি কমিশনার (ভূমি) মিন্টু বিশ্বাস বলেন, অভিযোগের সত্যতা যাচাই করে দ্রুত যথাযথ আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

গোপালগঞ্জের জেলা প্রশাসক শাহিদা সুলতানা বলেন, অভিযোগটি দেখে অবশ্যই আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সময় জার্নাল/গোপালগঞ্জ/

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ