‘ঘৃণা নয়, ভালোবাসা নিয়ে করোনায় আক্রান্তদের পাশে দাঁড়াতে হবে’

প্রকাশিতঃ ১১:২৫ অপরাহ্ণ, বৃহঃ, ২ জুলাই ২০

সময় জার্নাল প্রতিবেদক : করোনা ভাইরাস বিশ্বব্যাপী মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়েছে। করোনায় আক্রান্ত হওয়ার ভয়ে প্রিয়জনদেরও দুরে ঠেলে দিচ্ছেন স্বজনরা। ফলে করোনা সংকটের সাথে সাথে শুরু হয়েছে মানবিক বিপর্যয়। ন্যূনতম সেবাটুকুও না পেয়ে ধুকে ধুকে মৃত্যুর দিকে ঝুঁকে পড়ছেন আক্রান্তরা। করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে হলে ঘৃণা নয়, ভালোবাসা নিয়ে আক্রান্তদের পাশে দাঁড়াতে হবে।

বৃহস্পতিবার রাতে অনলাইন নিউজ পোর্টাল সময় জার্নালের ইসলাম বিষয়ক নিয়মিত আয়োজন ‌’আলোর পথ ইসলাম’ অনুষ্ঠানে আলোচকগণ এসব কথা বলেন। এবারের বিষয় ছিল ‘মহামারী সম্পর্কে ইসলাম কি বলে’।

সময় জার্নালের অফিশিয়াল ফেসবুক পেজ ও অফিশিয়াল ইউটিউব চ্যানেলে অনুষ্ঠানটি প্রচার হয়।

খ্যাতিসম্পন্ন ক্বারি, মিডিয়া ব্যক্তিত্ব ও হলিক্রস উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের শিক্ষক ক্বারি নাসির উদ্দিন ফুয়াদের সঞ্চালনায় আলোচক ছিলেন আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন ক্বারি ও মিডিয়া ব্যক্তিত্ব ক্বারি একেএম ফিরোজ এবং নিবরাস মাদরাসার অধ্যক্ষ শায়েখ মোহাম্মদ মুতাছিম বিল্লাহ মাক্কী।

আলোচকবৃন্দ বলেন, পৃথিবীর ইতিহাসের দিকে তাকালে দেখা যায় আদি পিতা আদম (আ.) এর সময় থেকে বর্তমানকাল পর্যন্ত পৃথিবীবাসীর উপর আল্লাহর পক্ষ থেকে বিভিন্ন সময়ে আজাব ও গজব নাজিল হয়েছে। এ আজবগুলো কখনো ব্যক্তির উপর, কখনো সমাজ ও রাষ্ট্রের উপর, আবার কখনো পুরো বিশ্ববাসীর উপর নেমে এসেছিলো। আল্লাহ তায়ালা বিশ্ববাসীকে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার জন্য এসব আজাব নাজিল করে থাকেন। এসব আজাব বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন নামে পৃথিবীতে প্রকাশ পেয়ে থাকে।

আলোচকবৃন্দ আরও বলেন, আমরা করোনা ভাইরাসকে ভয় পাচ্ছি, অথচ যিনি করোনাকে সৃষ্টি করেছেন তাঁর কোন খবর নিচ্ছি না। তাঁর কাছে কেউ আত্মসমার্পণ করছি না। সৃষ্টিকর্তার হুকুম ছাড়া করোনার কোন শক্তি নেই আমাদেরকে আক্রান্ত করার। তাই মহামারী করোনা থেকে বাঁচতে হলে আমাদেরকে যাবতীয় অত্যাচার-অনাচার পরিহার করে সৃষ্টিকর্তার দিকেই ফিরে যেতে হবে।

মহামারী থেকে বাঁচার জন্য শরীয়তের বিধি-বিধানের পাশাপাশি স্বাস্থ্যবিধিও মেনে চলার আহ্বান জানান আলোচকরা। তারা বলেন, করোনা থেকে সুরক্ষার জন্য সর্বোচ্চ চেষ্টা করুন, তারপরও যদি আক্রান্ত হয়ে যান তাহলে আল্লাহর পক্ষ থেকে পরীক্ষা হিসেবে মেনে নিয়ে পরিত্রাণের জন্য তাঁর নিকট সাহায্য কামনা করতে হবে। পাশাপাশি বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী প্রয়োজনীয় ঔষধ সেবন করতে হবে।

‘ইসলামে মহামারীতে মৃত্যুবরণকারীদের শহীদের মর্যাদা দেয়া হয়েছে’ উল্লেখ করে আলোচকরা বলেন, হাদীসে বলা হয়েছে- মহামারীতে কেউ আক্রান্ত হলে সে যেন ঐ এলাকা ছেড়ে না যায়, আবার অন্য এলাকা থেকেও কেউ যেন এই এলাকায় আসবে না। এক্ষেত্রে শরীয়তের বিধান হলো- নিজেও আক্রান্ত হবে না, আবার অন্যকেও আক্রান্ত করা যাবে না।

ইসলামী শরীয়তে ছোঁয়াচে রোগ বলে কোন কিছু নেই। তাই ঘৃণা নয়, ভালোবাসা নিয়ে করোনায় আক্রান্তদের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানান তারা।

আলোর পথ “ ইসলাম ”

ইসলাম বিষয়ক নিয়মিত আয়োজন আলোর পথ “ ইসলাম ”। জনপ্রিয় নিউজ পোর্টাল সময় জার্নালের কারিগরি ও সম্প্রচার সহায়তায় অনুষ্ঠানটি একযোগে প্রচার হবে সময় জার্নালের ফেসবুক পেজ ও ইউটিউব চ্যানেলে।অতিথি হিসেবে থাকছেন:১। ক্বারি একেএম ফিরোজ,আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন ক্বারি,মিডিয়া ব্যাক্তিত্ব২। শায়েখ মোহাম্মদ মুতাছিম বিল্লাহ মাক্কীঅধ্যক্ষ, নিবরাস মাদরাসা, ঢাকা।অনুষ্ঠানের উপস্থাপনায় থাকছেনঃক্বারি নাসির উদ্দিন ফুয়াদ, শিক্ষক, হলিক্রস উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় খ্যাতিসম্পন্ন ক্বারি,মিডিয়া ব্যাক্তিত্ব।আমাদের এই অনুষ্ঠান চলাকালে দর্শকরা মন্তব্যের ঘরে প্রশ্ন করে ইসলাম বিষয়ক যে কোন জ্ঞান জানতে পারবেন।

Posted by Somoy Journal on Thursday, July 2, 2020

সময় জার্নাল/শাহ্ আলম

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।