চাল না দিয়ে গৃহবধূকে মারধর, চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মামলা

প্রকাশিতঃ ১০:৪৫ অপরাহ্ণ, সোম, ৪ মে ২০

জামালপুর প্রতিনিধি: জামালপুরের ইসলামপুর উপজেলার কুলকান্দি ইউপি চেয়ারম্যান ও কতিপয় সদস্যদের বিরুদ্ধে মারধরের অভিযোগ করেছেন করিফুল বেগম (৩৮) নামে এক গৃহবধূ। সোমবার (৪ মে) দুপুরে ওই নারী থানায় চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মামলা করেন।

ইসলামপুর থানায় দাখিলকৃত অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, কুলকান্দি ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ডের হতদরিদ্র হিসেবে দীর্ঘদিন সরকারের ‘খাদ্য বান্ধব কর্মসূচি’ আওতায় কার্ডধারী হয়ে চাল উত্তোলন করে আসছিলেন কুলকান্দি মিয়াপাড়া গ্রামের মো. বাবুলের স্ত্রী করিফুল বেগম। করিফুল বেগম সম্প্রতি স্থানীয় মলমগঞ্জ বাজারে ওই কার্ডের চাল উত্তোলন করতে এসে দেখতে পান তার নাম নেই। এ সময় ইউপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান উবায়দুল হক বাবু ও সংরক্ষিত ইউপি সদস্য লাভলী বেগম জানিয়ে দেয় তাকে আর চাল দেওয়া হবে না। এমতাবস্থায় গত ২৯ এপ্রিল বেলা বারোটায় করিফুল বেগম ইউপির অস্থায়ী কার্যালয়ে ভিজিডি কার্ডের চাউল উত্তোলন করতে গেলে ইউপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান উবায়দুল হক বাবুসহ ইউপির অন্যান সদস্য তাকে অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করে। এক পর্যায়ে তারা লাঠিসোটা নিয়ে আক্রমণ করে এলোপাতাড়িভাবে আঘাত করে ও কিলঘুসি মেরে তার নাক-মুখসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখম করে। এ সময় নির্যাতিত করিফুল বেগমের ডাক-চিৎকারে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে। পরে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নেন তিনি।

মারধরের শিকার গৃহবধূ করিফুল বেগম জানান, ইউপি চেয়ারম্যান ও সদস্যদের পিটুনি খেয়ে নিরাপত্তাহীনতায় আছি। আমাকে মারধর করায় ইউপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান উবায়দুল হক বাবুসহ ৫ জনকে বিবাদী করে থানায় অভিযোগপত্র দিয়েছি।

ইউপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান উবায়দুল হক বাবু তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগকে মিথ্যা ও বানোয়াট দাবি করে বলেন, ওই মহিলাকে আসামী দিয়ে সরকারি চাল চুরির অভিযোগে কিছু দিন আগে আমি আদালতে মামলা করেছি। এখন সে আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার করছে।

ইসলামপুর থানার ওসি আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, অভিযোগ পেয়েছি। ঘটনাস্থলে পুলিশ যাবে। তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ