চুয়াডাঙ্গা দোস্ত গ্রামে লবণে লঙ্কাকান্ড

প্রকাশিতঃ ৩:৩০ অপরাহ্ণ, বুধ, ২০ নভেম্বর ১৯

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি:  চুয়াডাঙ্গাতে লবন নিয়ে এক প্রকার লঙ্কাকান্ড ঘটে গেছে। মঙ্গলবার সকাল থেকেই লবনের দাম বেশি হবে বলে গুজব সৃষ্টি হয়েছে সাধারণ মানুষের মধ্যে।এই গুজবে চুয়াডাঙ্গার বেশ কিছু মানুষ আগে থেকে কম দাম পাওয়ার আশায় লবন কিনতে ভিড় জমাচ্ছে দোকান গুলোতে।

এই সুযোগে কিছু কিছু দোকানদার লবনের আগের মূল্যের চেয়ে বেশি দাম নিলেও ক্রেতারা কেনার জন্য হুমড়ি খেয়ে পড়ছে।

সন্ধার পর সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় চুয়াডাঙ্গার দোস্ত গ্রামের প্রতিটি দোকানে একই চিত্র। বড় বড় ব্যাগ হাতে লাইনে দাড়িয়ে থাকতে দেখা যায় অনেক ক্রেতাকেই। তবে লবন গুজবটি শহরের তুলনায় গ্রাম অঞ্চলে বেশি ছড়িয়েছে। গ্রামে লবন না পেয়ে অনেক লোক শহরে চলে আসে লবন কিনতে।

ডিহি গ্রামের অন্তর মিত্র বলেন, পিয়াজের মত লবনেরও দাম বেশি হবে বলে শুনলাম। গ্রামের দোকানগুলোতে লবন শেষ তাই শহরে আসলাম কিনতে। কোথাই থেকে শুনলেন লবনের দাম বেশি হবে এমন প্রশ্নে জবাবে তিনি বলেন, গ্রামের অনেকেই বলাবলি করছে।

বাজারের কয়েকজন হোটেল ব্যবসায়ী জানান, সকাল থেকেই লবন বিক্রি বেড়ে গেছে আমাদের দোকানে। লবনের দাম বেশি হয়ে যাবে বলে হটাৎ করেই লবন কেনার হিড়িক লেগে গেছে। তবে হটাৎ করেই লবন গুজবে ফায়দা লুটেছে চুয়াডাঙ্গার বেশ কিছু ব্যবসায়ীরা।লবনের মূল্য ছাড়াও প্যাকেট প্রতি ১০-১৫ টাকা বেশি নিয়েছে ক্রেতাদের কাছে থেকে।

এদিকে লবন গুজবে কান না চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসন থেকে হবান জানানো হলেও খুব একটা কাজ হয়নি। সন্ধার পরে জেলা দোস্ত গ্রামে দোকানে লবণ কিনতে গেলে দেখা যাই ১৮ টাকার লবণ ৫০ টাকা।

জলগাড়ি ক্যাম্পের এ এন আই আনিসের সাথে এ বিষয়ে কথা বললে তিনি বলেন, এটা গুজব আপনারা কারো থেকে ১ টাকা ও বেশি নিবেন না। তিনি সাধারণ মানুষ বলেন আপনাদের কাছে যদি টাকা বেশি নেই তো আপনারা আমাকে জানাবেন।

হিজলগাড়ি প্রেসক্লাবের সভাপতি মো: আরিফ হাসান বলেন, এক প্রকার অসাধু লোক দেশে অস্থিতিকর পরিবেশ সৃষ্টি করার লক্ষে বিভিন্ন ধরনের গুজব ছড়াচ্ছে। দেশে পর্যাপ্ত পরিমান লবন মজুদ আছে।
হিজলগাড়ি ক্যাম্প এ এস আই আনিস আরো বলেন লবন নিয়ে যারা গুজব ছড়াবে এবং যেসব দোকানদাররা লবনের দাম বেশি নিবে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সময় জর্নাল/ ইব্রাহীম চৌধুরি

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ