চুয়েট ছাত্র শহীদুল কোথায়?

প্রকাশিতঃ ৯:২৪ পূর্বাহ্ণ, বৃহঃ, ৫ ডিসেম্বর ১৯

নিজস্ব সংবাদদাতা : নগরীর পাহাড়তলী থানার নয়া বাজার মৌসুমি আবাসিক এলাকা থেকে ডিবি পরিচয়ে চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (চুয়েট) এক শিক্ষার্থীকে অপহরণ করা হয়েছে বলে তার পরিবার থেকে অভিযোগ করা হয়েছে।

অপহৃত শিক্ষার্থী মোঃ শহীদুল ইসলাম আজাদ চুয়েট মেকানিকাল ইঞ্জিনিয়ারিং ডিপার্টমেন্টের শিক্ষার্থী। তার গ্রামের বাড়ি লোহাগাড়া উপজেলার বড়হাতিয়া ইউনিয়নের মালপুকুরিয়া গ্রামে। গত মঙ্গলবার ৩ ডিসেম্বর রাত সাড়ে ৯টার দিকে দিকে মৌসুমি আবাসিক এলাকা তানযীমুল উম্মাহ মাদ্রাসার সামনে থেকে একটি মাইক্রোতে করে তুলে নিয়ে যাওয়ার পর দুইদিন অতিবাহিত হলেও শহীদুল ইসলামের কোন খোঁজ মিলেনি বলে জানান তার পরিবার।

এ ব্যাপারে পরিবার ও আত্মীয় স্বজনরা থানা ও ডিবি অফিসে যোগাযোগ করলে কেউ শহীদুলকে আটক করেনি বলে জানায়। পরে এনিয়ে শহীদুল ইসলামের বাবা মো. শাহ আলম বুধবার বিকেলে পাহাড়তলী থানায় একটি সাধারণ ডায়রী দায়ের করেন (জি.ডি নং :১৬৩,তারিখ:৪ ডিসেম্বর, ২০১৯ ইংরেজি)।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে শহীদুল আলমের বাবা শাহ আলম সাংবাদিকদের বলেন, আমার ছেলে লেখাপড়া করে টিউশনি করে সময় পার করে। কোন সাত পাঁচে নেই। পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়ে। কেন আমার ছেলেকে নিয়ে গেলো আমরা বুঝতে পারছি না। দুইদিন পেরিয়ে গেলেও আমার ছেলের কোন খোঁজ খবর পাচ্ছি না। থানা পুলিশ ও ডিবির কাছে বার বার যোগাযোগ করলেও তারা আমাদের কিছু বলতে পারছে না।

এদিকে নিখোঁজ শহীদুল ইসলামের বন্ধুরা অভিযোগ করেন, ডিবি পুলিশ পরিচয়ে তুলে নিয়ে যাওয়ার পর থেকে পাহাড়তলী থানায় বার বার গিয়েও পুলিশের কোন সহযোগিতা পাওয়া যায়নি। পরিবারের পক্ষ থেকে ডিডি করতে চাইলে পুলিশ জিডি নেয়নি। দুই দিনের মাথায় বুধবার ৯৯৯ এ ফোন করার পর পুলিশ জিডি নিয়েছে।

শহীদুল ইসলামের নিখোঁজ হওয়া  জানতে চাইলে পাহাড়তলী থানার অফিসার ইনচার্জ মো. মাইনুর রহমান সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, এ নামে কাউকে আমাদের থানা পুলিশ আটক করেনি। ডিবিতে খবর নিয়েছি, তারাও আটক করেনি। তবে শহীদুল ইসলামকে কারা কি কারণে তুলে নিয়ে গেছে, সে ব্যাপারে আমরা অনুসন্ধান চালাচ্ছি।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ