জবি থেকেই উপাচার্য ও ট্রেজারার দাবি

প্রকাশিতঃ ৫:২০ অপরাহ্ণ, মঙ্গল, ২২ অক্টোবর ১৯

নিউজ ডেস্ক: জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) শিক্ষকদের মধ্য থেকেই উপাচার্য ও ট্রেজারার নিয়োগ ও জবি উপাচার্যের বক্তব্য প্রত্যাহারের দাবিতে মানববন্ধন করেছে সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

গতকাল মঙ্গলবার (২২ অক্টোবর) বেলা সাড়ে ১১ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মিনারে সাধারণ শিক্ষার্থীর ব্যানারে এ মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়। মানববন্ধন শেষে শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল বের করেন।

মানববন্ধনে সাধারণ শিক্ষার্থীরা বলেন, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত শিক্ষকদের মধ্য থেকেই উপাচার্য ও ট্রেজারার নিয়োগ দেওয়ার জোর দাবি জানাচ্ছি।

শিক্ষার্থীরা আরো বলেন, যেহেতু জবি উপাচার্য জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়কে মনে ধারণ করেন না, তাহলে তিনি কেন জবির ভিসি পদে বহাল থাকবেন বলে প্রশ্ন ছুড়ে দেন। সাম্প্রতিক সময়ে উপাচার্য ড. মীজানুর রহমানের গণমাধ্যমে দেয়া বক্তব্য প্রত্যাহারের জোর দাবি জানিয়ে আগামী রবিবারের মধ্যে বক্তব্য প্রত্যাহার এবং গ্রহণযোগ্য ব্যাখ্যা দিতে হবে।

এসময় শিক্ষার্থীরা জবি উপাচার্য তার বক্তব্য প্রত্যাহার না করলে আগামীতে আরও কঠোর কর্মসূচি দেওয়া হবে বলে হুশিয়ারী দেন।

প্রসঙ্গত, বেসরকারি যমুনা টেলিভিশনের এক টকশোতে কথা প্রসঙ্গে উপাচার্য ড. মীজানুর রহমান বলেন, যুবলীগের দায়িত্ব পেলে তিনি উপাচার্য পদ ছেড়ে দেবেন। জবি উপাচার্য হলেও তিনি এখনো যুবলীগের সভাপতিমন্ডলীর এক নম্বর সদস্য। আওয়ামী লীগ সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যদি তাকে দায়িত্ব দেন তাহলে তিনি উপাচার্য পদ ছেড়ে দিয়ে যুবলীগের পদে দায়িত্ব পালন করবেন।

এ বক্তব্যের পর বিভিন্ন গণমাধ্যমের সাক্ষাৎকারে জবি উপাচার্য বলেন, আমি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে চাকরি করি, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে না।

ফলে জবি শিক্ষার্থীদের মাঝে এ ক্ষোভের সৃষ্টি হয়।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ