জাবি ভিসি বোরকা পরে পালাবেন: মান্না

প্রকাশিতঃ ৬:২৭ অপরাহ্ণ, বুধ, ৬ নভেম্বর ১৯

নিউজ ডেস্ক: নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) ভিসি বোরকা পরে পালাবেন।

বুধবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে নাগরিক ছাত্র ঐক্য আয়োজিত ‘জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীর উপর ছাত্রলীগের বর্বরোচিত হামলার প্রতিবাদে এক মানববন্ধনে তিনি এ মন্তব্য করেন।

জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি বোরকা পরে পালাবেন মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘এখন যারা ক্ষমতায় আছেন তারা সব বলে বেড়াচ্ছেন, দুর্নীতির বিরুদ্ধে শুদ্ধি অভিযান করছেন। তাহলে শুদ্ধি অভিযানের শুরুতে তো জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর চাকরি চলে যাওয়া উচিত। তাহলে যাচ্ছে না কেন? গোপালগঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলরের চাকরি যায় না। সবাই দাবি করছে, কিন্তু তার চাকরি যায় না। অবশেষে ছাত্ররা এমন সর্বাত্মক আন্দোলন করলো যে, তাকে রাতের আঁধারে পালিয়ে যেতে হয়েছে। অপেক্ষা করেন, জাহাঙ্গীরনগরের এই ভিসিকে রাতের অন্ধকারে বোরকা পরে পালিয়ে যেতে হবে সেদিন বেশি দূরে নয়।

মান্না বলেন, দীর্ঘদিন ধরে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা আন্দোলন করছেন। তাদের যে উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে সে সম্পর্কে তারা জানতে চাই। কারণ উন্নয়ন প্রকল্প যথাযথ নয়, উন্নয়ন প্রকল্পের অর্থ ব্যয় করা হচ্ছে না। এখানে লুটপাট চলছে। তাদের জিজ্ঞাসা সম্পর্কে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ কোনো জবাব দেননি।

সবশেষে গতকালকে যে ঘটনা ঘটেছে সেটা আমরা আপনারা দেখেছেন। অভ্যুত্থান মানে কি সেটা জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি জানেন না। অভ্যুত্থান উনি দেখেন নাই। সেটার চেয়ে বড় কথা হচ্ছে জনতার অভ্যুত্থানকে নিয়ে অপমান করেছেন। কয়েকজন গুন্ডা গিয়ে অন্তত ৪ জন শিক্ষককে পিটিয়ে আহত করেছে। অনেক ছাত্রদের আহত করেছে। তারপরে সেই বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি যদি বলেন, এটা ছাত্রদের অভ্যুত্থান। তাহলে এর চেয়ে লজ্জার কোনো ব্যাপার থাকে না।

নাগরিক ঐক্যের এই আহ্বায়ক জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলরের পদত্যাগ দাবি করে বলেন, ‘জাহাঙ্গীরনগরের ভিসির পদত্যাগ চাই, এমন অপবাদের মুখে যে সকল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির আছে পদত্যাগ চাই, এই বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি নিয়োগ দিল যে মন্ত্রণালয়, তার মন্ত্রী- ওনার ক্ষমতায় থাকার অধিকার নাই।

এই সরকারের কাছে বাংলাদেশের মানুষ নিরাপদ নয়। আপনাদের কাছে আবরার নিরাপদ নয়। আপনাদের কাছে তনু, তিশা, রাজশাহী পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের প্রিন্সিপালের মতো শিক্ষকরা নিরাপদ নয়। কখন মনে হয় আপনাদের পান্ডারা হাত-পা বেঁধে পানিতে ফেলে দিয়ে মেরে ফেলবে- আমাদের জীবন নিরাপদ। অতএব বাঁচতে চাই বলে অবিলম্বে আপনাদের পদত্যাগ চাই।

মানববন্ধনে নাগরিক ছাত্র ঐক্যের কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ