জাপার প্রধান পৃষ্ঠপোষক রওশন, চেয়ারম্যান জিএম কাদের

প্রকাশিতঃ ৩:২৩ অপরাহ্ণ, শনি, ২৮ ডিসেম্বর ১৯

সময় জার্নাল প্রতিবেদক : জাতীয় পার্টির (জাপা) নতুন কমিটিতে রওশন এরশাদ প্রধান পৃষ্ঠপোষক ও জিএম কাদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন।

শনিবার (২৮ডিসেম্বর) রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন প্রাঙ্গণে জাপার নবম কাউন্সিলে প্রধান নির্বাচন কমিশনার অ্যাডভোকেট সিরাজুল ইসলাম তাদের নাম প্রস্তাব করেন। এ সময় উপস্থিত কাউন্সিলররা কণ্ঠভোটে তা পাস করেন।

এরপর জাতীয় পার্টির মহাসচিব হিসেবে মসিউর রহমান রাঙ্গাঁকে নির্বাচন করেন দলের চেয়ারম্যান জিএম কাদের।

জোর চেষ্টা চালালেও জাতীয় পার্টির (জাপা) চেয়ারম্যান হতে পারেননি বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ। শনিবার দলের কাউন্সিলেও যোগ দেন তিনি। তার অনুপস্থিতিতেই প্রয়াত হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের ভাই জিএম কাদেরকেই চেয়ারম্যান ঘোষণা করা হয়েছে। আর দেবর-ভাবির বিরোধ সামাল দিয়ে এরশাদপত্নী রওশনকে সন্তুষ্ট করতে তার জন্য ‘প্রধান পৃষ্ঠপোষক’ পদ সৃষ্টি করা হয়েছে। আমৃত্যু তিনি এ পদে থাকবেন।

পদমর্যাদায় চেয়ারম্যানের ওপর থাকবেন প্রধান পৃষ্ঠপোষক। দলীয় প্রতীক শুধু তার গাড়িতেই থাকবে, যা এতদিন ধরে চেয়ারম্যানের গাড়িতে ব্যবহার হতো। তবে পদটি হবে আলংকারিক। দলের সব নির্বাহী ক্ষমতা আগের মতোই থাকবে চেয়ারম্যানের হাতে।

শুক্রবার বনানী কার্যালয়ে জিএম কাদেরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত প্রেসিডিয়ামের সভায় এসব সিদ্ধান্ত হয়।

সভায় সিদ্ধান্ত হয়, জাপায় সাতটি কো-চেয়ারম্যান এবং আটটি মহাসচিব পদ সৃষ্টি করা হবে। জ্যেষ্ঠ নেতারা কো-চেয়ারম্যান হবেন। জাপা চেয়ারম্যান কো-চেয়ারম্যান ও প্রেসিডিয়ামের মতামত নিয়ে দল চালাবেন।

২০১৬ সালের জানুয়ারিতে পদ সৃষ্টি করে জিএম কাদেরকে কো-চেয়ারম্যান করেছিলেন এরশাদ। রওশন ও তার অনুসারীরা এ সিদ্ধান্ত মেনে নিতে অস্বীকৃতি জানিয়ে ‘বিদ্রোহ’ করেন। এরশাদকে ‘অব্যহতি’ দিয়ে রওশনকে জাপার চেয়ারম্যান ঘোষণা করেন তার অনুসারীরা। চার মাস পর ২০১৬ সালের মে মাসে জাপার অষ্টম কাউন্সিলে স্ত্রী রওশনকে সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান করে পরিস্থিতি সামাল দিয়েছিলেন এরশাদ।

তবে এরশাদের মৃত্যুর পর দলের চেয়ারম্যান ও বিরোধীদলীয় নেতা পদ নিয়ে প্রকাশ্যে বিরোধে জড়ান দেবর-ভাবি। দুই পক্ষের সমঝোতায় বিরোধীদলীয় নেতার পদ রওশনকে ছেড়ে দেন জিএম কাদের। তাকে কাউন্সিল পর্যন্ত চেয়ারম্যান হিসেবে মেনে নেন রওশন। এরশাদের মৃত্যুতে শূন্য রংপুর-৩ আসনে রওশন পুত্র আল মাহী সাদ এরশাদকে লাঙ্গলের প্রার্থী করা হয়।

কয়েক মাস বিরতি দিয়ে চেয়ারম্যান পদ নিয়ে গত সপ্তাহে আবার অস্থিরতা সৃষ্টি হয় জাপায়। রওশন তার বাসায় জাপার জ্যেষ্ঠ নেতাদের ডেকে নিয়ে চেয়ারম্যান হওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেন। মহাসচিব পদে সৌদি আরবে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত গোলাম মসিহকে চান।

আরইউটি/

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ