ডুডলে ওমর খৈয়ামকে স্মরণ গুগলের

প্রকাশিতঃ ১:৫৬ অপরাহ্ণ, শনি, ১৮ মে ১৯

নিউজ ডেস্ক :

“মরুভূমির মধ্যে গিয়ে, একটি যদি শহর গড়ো;
একটি হৃদয় সুখী করা, তার চাইতেও অনেক বড়।

যদি একটি ব্যর্থ জীবন, তোমার প্রেমে ভেজে
শত বন্দি মুক্ত করার, চেয়েও সেটা মহত্ত্বর।”

ওমর খৈয়ামের এই কবিতাখানির মতো করেই গুগল মনে করিয়ে দিল আজ তার জন্মদিন।

বিশেষ দিনগুলোতে গুগল ডুডলে স্থান পায় বিশেষ ঘটনা।এবারও ইরানের কবি, গণিতবেত্তা, দার্শনিক ও জ্যোতির্বিদ এবং বহুমুখী প্রতিভার দৃষ্টান্ত ওমর খৈয়াম এর ৯৭১ তম জন্মবার্ষিকী ডুডলে দেখা মিলল।

“দয়া যদি কৃপা তব সত্য যদি তুমি দয়াবান
কেন তবে তব স্বর্গে পাপী কভু নাহি পায় স্থান?
পাপীদেরই দয়া করা সেই তো দয়ার পরিচয়
পূণ্যফলে দয়া লাভ সে তো ঠিক দয়া তব নয়”

মধ্যযুগের মুসলিম মনীষা জামাকসারি ওমর খৈয়ামকে “বিশ্ব দার্শনিক” হিসেবে বর্ণনা করেছেন।তিনি তাঁর কবিতা সমগ্র, যা ওমর খৈয়ামের রূবাইয়াত নামে পরিচিত, তার জন্য বিখ্যাত।

ওয়াম খৈয়াম।পুরো নাম গিয়াসউদিন আবুল ফাতেহ ওমর ইবনে ইব্রাহিম আল-খৈয়াম নিশাপুরির্সি।তার জন্ম ১৮ মে ১০৪৮ – মৃত্যু ৪ ডিসেম্বর , ১১৩১)

তিনি একজন ইরানের কবি, গণিতবেত্তা, দার্শনিক ও জ্যোতির্বিদ। ইরানের নিশাপুরে জন্মগ্রহণ করার পর যুবা বয়সে তিনি সমরখন্দে চলে যান এবং সেখানে শিক্ষা সমাপ্ত করেন।

বুখারায় নিজেকে মধ্যযুগের একজন প্রধান গণিতবিদ ও জ্যোতির্বিদ হিসাবে প্রতিষ্ঠিত করেন। বীজগণিতের গুরুত্বপূর্ণ “Treatise on Demonstration of Problems of Algebra“ গ্রন্থে তিনি ত্রিঘাত সমীকরণের সমাধানের একটি পদ্ধতি বর্ণনা করেন।

যে পদ্ধতিতে একটি পরাবৃত্তকে বৃত্তের ছেদক বানিয়ে ত্রিঘাত সমীকরণের সমাধান করা হয়। ইসলামি বর্ষপঞ্জি সংস্কারেও তাঁর অবদান রয়েছে।

তাঁর কাব্য-প্রতিভার আড়ালে তার গাণিতিক ও দার্শনিক ভূমিকা অনেকখানি ঢাকা পড়েছে। ধারণা করা হয় রনে দেকার্তের আগে তিনি বিশ্লেষণী জ্যামিতি আবিষ্কার করেন। তিনি স্বাধীনভাবে গণিতের দ্বিপদী উপপাদ্য আবিষ্কার করেন। বীজগণিতে ত্রিঘাত সমীকরণের সমাধান তিনিই প্রথম করেন।

দর্শন ও শিক্ষকতায় ওমরের কাজ তাঁর কবিতা ও বৈজ্ঞানিক কাজের আড়ালে অনেকখানি চাপা পড়েছে কেননা তিনি নিশাপুরে তিন দশক ধরে শিক্ষকতা করেছেন।

ইরান ও পারস্যের বাইরে ওমরের একটি বড় পরিচয় কবি হিসাবে। কারণ তাঁর কবিতা বা রুবাই এর অনুবাদ এবং তার প্রচারের কারণে। ইংরেজী ভাষী দেশগুলোতে সবচেয়ে বেশি প্রভাব দেখা যায়। ইংরেজ মনিষী টমাস হাইড প্রথম অ-পারস্য ব্যক্তিত্ব যিনি প্রথম ওমর কাজ সম্পর্কে গবেষণা করেন।

তবে, বহির্বিশ্বে খৈয়ামকে সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয় করেন এডওয়ার্ড ফিটজেরাল্ড। তিনি খৈয়ামের ছোট ছোট কবিতা বা রুবাই অনুবাদ করে তা রুবাইয়্যাতে ওমর খৈয়াম নামে প্রকাশ করেন।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ