তিনদিনের জন্য চবির আন্দোলন শিথিল

প্রকাশিতঃ ৩:৩৪ অপরাহ্ণ, সোম, ২ ডিসেম্বর ১৯

নিউজ ডেস্ক: রাষ্ট্রপতির সফর উপলক্ষ্যে অনির্দিষ্টকালের অবরোধ ‘শিথিল’ করেছে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের একাংশ। তাপস স্মৃতি পরিষদের ডাকা অবরোধ আগামী তিনদিনের (সোম থেকে বুধবার) জন্য শিথিল করা হয়েছে।

চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (চুয়েট) চতুর্থ সমাবর্তনে যোগ দিতে আগামী ৫ ডিসেম্বর রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের চট্টগ্রামে আসার কথা রয়েছে।

সোমবার (২ ডিসেম্বর) অবরোধ শিথিলের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি রেজাউল হক রুবেল।

ছাত্রলীগ সভাপতি রুবেল বলেন, ‘অবরোধ শিথিল হলেও শান্তিপূর্ণ আন্দোলন চলবে। আমরা প্রশাসনকে তিনদিনের সময় দিয়েছি। এর মধ্যে প্রশাসন যদি আমাদের দাবি না মানে তাহলে আমরা পরবর্তীতে কঠোর আন্দোলনে যাব।’

নিজেদের দাবির বিষয়ে উপাচার্যের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, “উপাচার্য এ বিষয়ে যথাযথ ব্যবস্থা নেবেন বলে আমাদের আশ্বস্ত করেছেন।”

এদিকে ছাত্রলীগের একাংশের ডাকা অবরোধের কারণে সোমবার সকাল থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্লাস-পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়নি বলে জানিয়েছেন শিক্ষার্থীরা। তবে শিক্ষকদের বাসগুলোর চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন দপ্তরের পরিচালক মো রাশেদ-উন-নবী বলেন, “চলমান পরিস্থিতির কারণে শহরগামী শিক্ষকবাস ক্যাম্পাস থেকে ছাড়তে কিছুটা বিলম্ব হলেও বর্তমানে বাস চলাচল স্বাভাবিক।”

ঘটনার সূত্রপাত রোববার সন্ধ্যায় ক্যম্পাসের বাইরে হাটহাজারী এগার মাইল এলাকায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শাটল ট্রেনের বগিভিত্তিক সংগঠন ‘চুজ ফ্রেন্ডস উইথ কেয়ার’ (সিএফসি) এর দুই কর্মীর ওপর হামলার পর। সিএফসি ছাত্রলীগের বর্তমান সভাপতি রেজাউল হক রুবেলের অনুসারী হিসেবে পরিচিত। হামলার জন্য সিএফসি গ্রুপ শাটল ট্রেনের বগিভিত্তিক আরেক পক্ষ ‘ভার্সিটি এক্সপ্রেস’(ভিএক্স) এর কর্মীদের দায়ী করছে।

ওই হামলার খবর ক্যাম্পাসে পৌঁছালে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে শাহ আমানত ও সোহরাওয়ার্দী হলের সামনে সিএফসি ও ভিএক্স এর কর্মীদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা-ধাওয়া ঘটে। এর আগে গত বৃহস্পতিবার রাতে দুই পক্ষে মারামারি হয়। তারপর শুক্রবার রাতেও এ দুই পক্ষের মারামারিতে পাঁচ জন আহত হয়।

এই ঘটনার জের ধরে ভিএক্স গ্রুপের নেতাকর্মীরা রোববার সিএফসি গ্রুপের দুই নেতার উপর হামলা করে বলে দাবি করেন ছাত্রলীগের সভাপতি রুবেল।

রোববারের হামলার বিচার দাবিতে অনির্দিষ্টকালের অবরোধের ঘোষণা দেন তিনি।

রোববার হাটহাজারীতে হামলার ঘটনা প্রসঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর এস এম মনিরুল হাসান বলেন, “গতকাল হাটহাজারী এগার মাইল এলাকায় কিছু দুর্বৃত্তের হাতে একজন প্রাক্তন ও একজন বর্তমান শিক্ষার্থী আক্রান্ত হয়। এ ঘটনার রেশ ধরে হলগুলোর আবাসিক শিক্ষার্থীদের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করে।

“ঘটনাস্থলে প্রক্টরিয়াল বডি ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা উপস্থিত হলে দুর্বৃত্তরা পুলিশের চারটি এবং প্রক্টরিয়াল বডির একটি গাড়িতে অর্তকিত হামলা চালায়।”

তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বিবাদমান শিক্ষার্থীদের কর্মকাণ্ড গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করছে এবং বিশৃঙ্খলা এড়াতে অত্যন্ত সতর্কতা অবলম্বন করছে।

“বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষা-গবেষণার সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বজায় রাখতে প্রশাসন যেকোনো কঠিন পদক্ষেপ গ্রহণ করতে বদ্ধপরিকর।”

ইতোমধ্যে প্রশাসন চলমান পরিস্থিতিতে জড়িতদের শনাক্ত করতে কাজ শুরু করছে বলে জানান প্রক্টর এস এম মনিরুল হাসান।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ