থেমে নেই তরুণ প্রজন্ম

প্রকাশিতঃ ৮:০৩ অপরাহ্ণ, বুধ, ১৫ এপ্রিল ২০

মেহেরুজ্জামান সেফু : চীনের উহান শহর থেকে ছড়িয়ে পড়া প্রান ঘাতি করোনা ভাইরাস পুরো বিশ্বকে গ্রাস করছে। সেই অনুযায়ী বাংলাদেশে ছড়িয়ে পড়েছে এই ভাইরাস। সারাবিশ্বে তথা বাংলাদেশেও এই ভাইরাসে আক্রান্ত ও মৃত্যের সংখ্যা হু হু করে বেড়েই চলেছে। বাংলাদেশ সরকার অঘোষিত লক ডাউন পালন করছেন। যার ফলে সর্ব সাধারণ বিপাকে পড়েছেন।

নেই কোন কর্ম তাই বন্ধ হয়ে গেছে আয়ের সব পথ। অসহায় দিনমজুরদের তাই করোনার থেকে এখন সবথেকে বড় দুশ্চিন্তার কারন হয়ে দারিয়েছে দু মুঠো খাবার। দেশের এমন পরিস্থিতিতে দেশের সকল পর্যায় অসহায় ও দরিদ্রদের মাঝে ত্রান বিতরন করে আসছে সরকারি ও বেসরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও সংগঠন।

থেমে নেই তরুণ প্রজন্ম। “মানুষ মানুষের জন্য, জীবন জীবনের জন্য”- ভূপেন হাজারিকার কালজয়ী গানের এই কথাটি নিজেদের মধ্যে ধারন করে, সাধ্যমতো চেষ্টা করছে অসহায় মানুষ গুলোর পাশে দাড়াতে।

মাদারীপুর জেলার কালকিনি উপজেলার বাঁশগাড়ী ইউনিয়নের এস এস সি ব্যাচ-১৬ এর নাজমুল, সিফাত,তানভীর তুরাইয়া, রিজন, জাহিদ, ইয়াসিন, সায়মা, রাজিব, সানজিদারা মিলে এবং তাদের এলাকারই কিছু বড় ভাইদের সার্বিক সহযোগিতায় অত্র ইউনিয়নের উওর উড়ারচর, দক্ষিণ আকাল বরীশ, উওর ছয়গাঁও, নারকেলী কানুরগাঁও, দক্ষিণ বাঁশগাড়ী, মধ্যেরচর, আউলিয়ারচর গ্রামের প্রায় ৬০-৭০ টি অসহায় দিনমজুর পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করে। এর আগে বাঁশগাড়ী ইউনিয়নের আশ্রয়কেন্দ্রে ও কয়েক টি গ্রামে ৫০০ পরিবারের মাঝে সচেতনতা মূলক প্রচার পএ ও সাবান বিতরণ করে তারা।

রাতের আঁধারেই চলে তাদের এই ত্রান বিতরনের কার্যক্রম। তাদের দেওয়া ত্রাণ সামগ্রীর মাঝে ছিলো চার কেজি করে চাল, আধা কেজি ডাল, আধা কেজি লবন ও এক কেজি করে আলু।

এ কার্যক্রম সম্পর্কে জানতে চাইলে এস এস সি ব্যাচ ১৬ এর ছাত্র মেরাজুল ইসলাম জাহিদ বলেন, দেশব্যাপী করোনা ভাইরাসের বিস্তৃতি ঠেকাতে সরকার আগামী ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত সাধারণ ছুটি ঘোষণা করেছে। এই সময়ের মধ্যে জন সাধারণ কে বাড়ির বাইরে বের না হতে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে ভোগান্তিতে পরেছে দিনমজুর থেকে শুরু করে মধ্যেবিও ও নিম্ন মধ্যবিও পরিবারের সদস্যরা। এতে করে অনেক পরিবারের তিনবেলা খাবার সংগ্রহ করা নিয়ে দেখা দিয়েছে চরম অনিশ্চয়তা।

এমন পরিস্থিতিতে কয়েকজন বড়ো ভাই ও কয়েকজন বন্ধুর সহযোগিতায় আমরা ৬০ থেকে ৭০ টি পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেছি। এর আগে আমরা বাঁশগাড়ী ইউনিয়নের আশ্রয়কেন্দ্রে ও কয়েক টি গ্রামে ৫০০ পরিবারের মাঝে সচেতনতা মূলক প্রচার পএ ও সাবান বিতরণ করে আসছি। এবং আমরা আমাদের এই কার্যক্রম প্রতিনিয়ত চালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছি। আপনারা সবাই আমাদের জন্য ও যে সকল বড়ো ভাইয়েরা আমাদের সহযোগিতা করে এগিয়ে এসেছেন তাদের জন্য ও তাদের পরিবারের জন্য দোয়া করবেন।

এছাড়া এ সম্পর্কে আরো জানতে চাইলে ধুমকেতু সংগঠন এর সদস্য আম্মার বিনতে বাবাুল তুরাইয়া বলেন, এলাকার অনেক মানুষ ছিলেন যারা স্বাস্থ্য সচেতনতা থেকে শুরু করে করোনা ভাইরাস সম্পর্কে কি করনীয় এসব বেপারে জানতেন না তাছাড়া ও হোম কোয়ারান্টাইন আইসোলেশন লকডাউনের মতো শব্দ তাদের বোধগম্য ছিলো না। তখন তাদের সচেতনতায় আমরা এস এস সি ব্যাচ১৬ ও ধুমকেতু সংগঠনটি প্রতিষ্ঠা করি এবং আলহামদুলিল্লাহ এ পর্যন্ত সফল ভাবে ত্রান সরবরাহ করতে সক্ষম হয়েছি । সামনের দিনেও এ ধারা অব্যাহত থাকবে বলে আমাদের বিশ্বাস। আমাদের সতর্কতা, সহযোগিতা এবং দায়িত্ব বোধই হয়তো পারবে এই করোনা কালীন দূর্যোগ থেকে আমাদের রক্ষা করতে।

তাদের সাথে সাথে এখন সকলের একটাই প্রত্যাশা এ অসুস্থ পৃথিবী শিগগিরই সুস্থ হয়ে যাবে। সৃষ্টি কর্তার অপার মহিমায় সবটা আবার আগের মত স্বাভাবিক হয়ে উঠবে।

বার্তা প্রেরক : সংবাদ পাঠক রেডিও আমার ৮৮.৪ এফ এম।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ