দিনাজপুরে কোয়ারেন্টাইনে ২৩৩৩

প্রকাশিতঃ ১১:২০ অপরাহ্ণ, বৃহঃ, ২৩ এপ্রিল ২০

মাহবুবুল হক খান, দিনাজপুর : দিনাজপুর জেলায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত সন্দেহে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা ব্যক্তির সংখ্যা আবারো বৃদ্ধি পেয়ে ২৩৩৩ জন হয়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে আরো ৬৫ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে নেয়া হয়েছে। আর সুস্থ হওয়ায় ইমোমধ্যে ১৯৫৬ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইন থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। আর প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে রয়েেেছ ৫৫ জন। এ পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছে ১৩ জন।

দিনাজপুরের সিভিল সার্জন ডা. মো. আব্দুল কুদ্দুস বৃহস্পতিবার (২৩ এপ্রিল) সন্ধ্যা ৭টায় সিভিল সার্জনের ফেসবুকে দেয়া এক স্ট্যাটাসে এসব তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত দিনাজপুর জেলায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত সন্দেহে নতুন করে ৬৫ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে নেয়া হয়েছে। এ নিয়ে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা ব্যক্তির সংখ্যা বেড়ে ৪২৮৯ জনে পৌঁছে। আর করোনাভাইরাস না পাওয়ায় ইতোমধ্যে ১৯৫৬ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইন থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। ফলে বর্তমানে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা ব্যক্তির সংখ্যা ২৩৩৩ জন হয়েছে। আর গত ২৪ ঘন্টায় ৬ জনকে অব্যাহতি দেয়ায় বর্তমানে জেলায় প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে রয়েছে ৪৯ জন।

তিনি আরও জানান, ২৩ এপ্রিল বৃহস্পতিবার ২৮টি নমুনাসহ এ পর্যন্ত ৩৮৭টি নমুনা পরীক্ষার জন্য ল্যাবেরটরীতে পাঠানো হয়েছে। এর মধ্যে যে ক’টি নমুনার ফলাফল পাওয়া গেছে তার মধ্যে ১৩ জন করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়েছে। আক্রান্তদের মধ্যে ১২ জন রয়েছে হোম আইসোলেশনে ও নবাবগঞ্জে একজন রয়েছে পাতিষ্ঠানিক আইসোলেশনে।

জেলার ১৩টি উপজেলার মধ্যে ৭টি উপজেলায় করোনায় আক্রান্ত রোগি শনাক্ত হয়েছে। এগুলো হলো-দিনাজপুর সদর, বোচাগঞ্জ, কাহারোল, পার্বতীপুর, ফুলবাড়ী, নবাবগঞ্জ ও ঘোড়াঘাট উপজেলা।
এদিকে সিভিল সার্জন ডা. মো. আব্দুল কুদ্দুছ বৃহস্পতিবার সকালে দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা আইসোলেশন ইউনিট, ট্রায়াজ সেন্টার ও আইসিইউ ভবন পরিদর্শন করেন। এ সময় তাঁকে সহযোগিতা করেন এম আব্দুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা. নির্মল চন্দ্র দাস, সহকারী পরিচালক (প্রশাসন) ডা. নজমুল ইসলাম, সহকারী পরিচালক (স্টোর) ডা. সিরাজুল ইসলাম। এ সময় তাঁর সাথে ছিলেন সেনাবাহিনীর কর্ণেল শরীফুল ইসলাম, সিভিল সার্জনের ভ্রমন সঙ্গী ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. আসগর কামাল সিদ্দিকী ও সিভিল সার্জন অফিসের মেডিকেল অফিসার ডা. শাহ মো. এজাজ-উল হক। পরিদর্শন শেষে সিভিল সার্জন সন্তোষ প্রকাশ করেন।

অপরদিকে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় দিনাজপুরের জেলা প্রশাসক মো. মাহমুদুল আলম স্বাক্ষরিত জেলা প্রশাসকের ফেসবুকে দেয়া এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, “জেলায় গত ২৪ ঘন্টায় জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কর্তৃক পরিচালিত মোবাইল কোর্টে মোট ২৮টি মামলায় কোয়ারেন্টাইন মেনে না চলা, সামাজিক দূরত্ব বজায় না রাখা, আদেশ অমান্য করে গণপরিবহণ চালানো, বন্ধ রাখার নির্দেশ প্রাপ্ত হওয়া সত্ত্বেও দোকান খোলা রাখা ইত্যাদিসহ বিভিন্ন অপরাধে অভিযুক্ত ২৮ জনকে অভিযুক্তকে সর্বমোট ১ লাখ ৭ হাজার টাকা অর্থদন্ডে দন্ডিত করা হয়েছে।”

সময় জার্নাল/

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ