উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী :
দেশের প্রথম এক্সপ্রেসওয়ে চলাচলের জন্য উন্মুক্ত

প্রকাশিতঃ ১১:২২ পূর্বাহ্ণ, বৃহঃ, ১২ মার্চ ২০

নিউজ ডেস্ক : খুলে দেয়া হলো দেশের প্রথম এক্সপ্রেসওয়ে, পদ্মা সেতুর সংযোগ সড়ক। সেতুর দুইপাশে ঢাকা থেকে ফরিদপুরের ভাঙা পর্যন্ত নির্মিত ৫৫ মিটারের এ সড়ক উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আজ বৃহস্পতিবার সকালে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সড়কটির উদ্বোধন করা হয়। ফলে পদ্মা সেতু উদ্বোধনের আগেই সুফল পেতে শুরু করেছেন স্থানীয় মানুষরা৷

পদ্মা সেতুর উদ্বোধন ২০২১ সালের ডিসেম্বরে। তবে তার আগেই এলো দেশের দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলের কোটি মানুষের জন্য সুখবর। খুলে দেয়া হয়েছে এ সেতুর সংযোগ সড়ক।

রাজধানীর যাত্রাবাড়ি থেকে মুন্সিগঞ্জের মাওয়া পর্যন্ত ৩৫ কিলোমিটার আর সেতু পার হয়ে মাদারিপুরের পাচ্চর থেকে ফরিদপুরের ভাঙা পর্যন্ত ২০ কিলোমিটার, সব মিলে ৫৫ কিলোমিটারের এ সড়কটি দেশর প্রথম এক্সপ্রেসওয়ে। অর্থাৎ কোথাও থামতে হবে না গাড়ি। কোন ট্রাফিক সিগন্যাল কিংবা ইন্টারসেকশান না থাকায় রাজধানী থেকে ছেড়ে যাওয়া গাড়ি সেতু পার হয়ে এক টানেই চলে যাবে ভাঙা।

মূলত পদ্মা সেতু হলে সড়ক যোগাোযোগ বাড়বে; তখন দুই লেনের আগের সড়ক সে চাপ সামাল দিতে পারবে না, এ লক্ষ্য থেকেই কাজ ধরা হয় এ সড়কের৷ এখন কাজ শেষ হওয়ায় উচ্ছাস এ সড়কটি ব্যবহারকারীদের।

২০১৬ সালে কাজ ধরা হয়, শেষ হওয়ার কথা ছিলো চলতি বছরের জুন মাসে। মুজিব বর্ষের উদ্বোধন উপলক্ষে নির্ধারিত মেয়াদের আগেই খুলে দেয়া হলো এক্সপ্রেসওয়েটি।

এ সড়কে ৪টি বড় সেতু, ৪ টি ফ্লাইওভার, ৪ টি রেলওয়ে ওভারব্রিজ এবং ১৯ টি আন্ডারপাস রয়েছে। ৪ লেনের দুই পাশে স্থানীয় যানবাহনের চলাচলের জন্য পৃথক দুটি সার্ভিস লেন থাকায় সুবিধা পাওয়া যাবে ৬ লেনের।

এছাড়া সড়কের মাঝখানে ৫ মিটার করে মেডিয়ান থাকায় দুর্ঘটনার ঝুকি নেই বললেই চলে। এই সড়ক নির্মানে শুরুতে বাজেট সোয়া ৬ হাজার কোটি টাকা থাকলেও পরে সেটা দাড়ায় প্রায় ১১ হাজার কোটি টাকা৷

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ