দেশে স্বাস্থ্যসেবার স্থানগুলো কবে উপযুক্ত হবে?

প্রকাশিতঃ ১১:২০ পূর্বাহ্ণ, বৃহঃ, ২৮ নভেম্বর ১৯

কামরুজ্জামান নাবিল, ইরানে অধ্যায়নরত মেডিকেল শিক্ষার্থী :

দুইমাস আগের কথা আম্মা কল দিয়ে জানালো বাবুর শরীরে Petechiae (মেডিকেল টার্ম) এমন কিছু দেখা যাচ্ছে। হাসপাতালে নিয়ে যেতে বললাম, সে সময় চিকিৎসক জানিয়েছিল এলার্জির কারণে এমন সমস্যা হতে পারে। সেভাবেই ট্রিটমেন্ট চলছিল।

হঠাৎ করে কিছুদিন আগে বাবু নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হয় হাসপাতালে ভর্তি হয়ে অনেকটা সুস্থ হয়ে বাড়িও ফিরেছিল। কিন্তু এর পরে বাবুর সারা শরীরে আবারো সেই Petechiae বাড়তে থাকে। রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে এক সপ্তাহ আগে এক চিকিৎসক জানান বাবুকে দ্রুত ঢাকায় নিয়ে যেতে।

রপরে বাবুকে ভর্তি করা হয় ঢাকা শিশু হাসপাতালে, বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষার মাধ্যমে ডাক্তাররা জানান বাবুর Von Willebrand Disease হয়েছে তাঁরপরে সেইমত শুরু হয় ট্রিটমেন্ট হিসেবে Fresh Frozen Plasma (FFP) দেয়া। কিন্তু হঠাৎই এফএফপি দেয়ার সময় ২৪ তারিখ রাতের বেলা বাবুর চোখ ফুলে উঠে। অতঃপর সে মুহুর্তে শিশু হাসপাতালে পর্যাপ্ত পিআইসিইউ (PICU) না থাকায় বেসরকারী হাসপাতালে নিয়ে যেতে বলা হয়।

এই পর্যায়ে বাবুকে রেনেসাঁ নামের একটি হাসপাতালে ৪৮ ঘনটা পিআইসিইউতে গভীর পর্যবেক্ষনে রাখা হয়। দেয়া হয় ফেক্টর ৯ ইনজেকশান। কিন্তু অবস্থা বাবুর শারীরিক অবস্থা অপরিবর্তীত থাকায় আজ (২৭ নভেম্বর) সকালে এম্বুল্যেন্সে করে রাজশাহীর পথে বাবুকে নিয়ে আসার যাত্রা শুরু হয়।

রাজশাহীতে এসে সরাসরি রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসকরা জানান, আজ (২৭ নভেম্বর) বিকেল আড়াইটার দিকে বাবু আমাদের ছেড়ে চলে গেছে।

-নিজেকে অপরাধী মনে হচ্ছে এজন্য যে, Petechiae দেখা গেছিল ছবিও চেয়ে ছিলাম- আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসকদের দেখাবো বলে। কিন্তু তা কেন যেন আর হয়ে উঠেনি।

– জানিনা দেশে স্বাস্থ্যসেবার পাওয়ার স্থানগুলো কবে উপযুক্ত হবে।

-বিশেষকরে শিশুরা অসুস্থ হলে তাঁদের ভাল করে চিকিৎসক দেখান, পরিক্ষা-নিরীক্ষা করান, তাঁরা যে বলতে পারেনা তাঁদের ভেতরের কথা।

– জেনেটিক্স রোগ এড়াতে বিয়ের আগে ছেলে-মেয়ের রক্ত পরীক্ষা করুন।

-ফ্যামিলিতে কারো জেনিটিক্যলি কোন রোগ থাকলে জন্মের পূর্ব থেকে নতুন যে আসছে তাঁর জন্য চিকিৎসকের স্বরানাপণ্ণ হন।

বাবুর সাথে সর্বশেষ ১৫দিন আগে ভিডিও কলে দেখছিলাম, বিদায়ের সময় যখন তাঁকে খোঁদা হাফেজ বলে হাত নাড়া দিলাম সেও হাত নাড়া দিয়ে বিদায় জানালো। সেঝো বোন তাঁর মা বলছিল কিভাবে সে হাত নাড়া দিচ্ছে ! কে জানতো এটায় তাঁর শেষ বিদায়…

আল্লাহ রহম করুন, আমিন।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ