নাটোরে জুমার নামাজকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ, গ্রেফতার ৬

প্রকাশিতঃ ৪:০৫ অপরাহ্ণ, শনি, ২ মে ২০

ইসাহাক আলী, নাটোর : জেলার সদরের দিঘাপতিয়া ইউনিয়নের পশ্চিম হাগুরিয়ায় জুমার নামাজ পড়াকে কেন্দ্র করেএলাকাবাসীর সাথে পুলিশের সংঘর্ষে ৪ পুলিশ সদস্য সহ অন্তত ৫ জন আহত হওয়ার ঘটনায় দুটি পৃথক মামলা দায়ের করা হয়েছে। এর মধ্যে ইমামকে মারধর করার ঘটনায় মসজিদের মোয়াজ্জিন আব্দুস সামাদ বাদী হয়ে একমাত্র আসামী শাহীনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেছেন। অপরদিকে পুলিশের ওপর হামলার ঘটনায় নাটোর থানার এসআই আনহার বাদী হয়ে ২৫/২৬জনকে অভিযুক্ত করে একটি মামলা দায়ের করেছেন। দুটি পৃথক মামলায় পুলিশ ছয়জনকে গ্রেফতার করেছে।

গ্রেফতার কৃতরা হলেন, শাহীন, আহমেদ . মহব্বত, আজিম, আরিফ ও মজনু।

এছাড়া আটক ইউপি সদস্য নাদিরুজ্জামান নাদিমসহ ৩জনকে জিজ্ঞাসাবাদ করে ছেড়ে দিয়েছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃতদের জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

এলাকাবাসী জানায়, শুক্রবার জুমার নামাজে পূর্ব হাগুরিয়া মসজিদের ইমাম সাহেব সরকারি নীতি অনুযায়ী ১২ জন মুসল্লি নিয়ে মসজিদের দরজা বন্ধ করে জুমার নামাজ আদায় করেন। এতে স্থানীয় যুবক শাহীনসহ আরও কয়েকজন জুমার নামাজে অংশ নিতে ব্যর্থ হয়। নামাজ শেষে শাহীন মসজিদের ইমামের উপর চড়াও হলে মুসুল্লিরা তাকে মারপিট করে।

এ ঘটনায় শাহিন পুলিশে খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। এ সময় পুলিশের সাথে উত্তেজিত স্থানীয়রা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এলাকাবাসীর হামলা ও ইটপাটকেল নিক্ষেপে এক নারী কনস্টেবল ও পুলিশ পরিদর্শকসহ চার পুলিশ সদস্য আহত হয়।

আহতরা হলেন পুলিশ পরিদর্শক আনহার ইসলাম কনস্টেবল সেকান্দার আলী ও নারী কনস্টেবল মঞ্জু।

এ ঘটনায় পরে পুলিশের এসআই আনহারের মামলায় পুলিশের ওপর হামলা, কর্তব্য কাজে বাঁধা প্রদানের অভিযোগে আহমেদ, মহব্বত, আজিম, আরিফ ও মজনুকে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করেছে। অপরদিকে ইমাম সাহেবের ওপর হামলার ঘটনায় শাহীনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে নাটোর সদর সার্কেলের এসপি অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবুল হাসনাত জানান, অভিযুক্তদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত আছে।

সময় জার্নাল/

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ