নিম্ন আয়ের মানুষের বাহন ‘ঈশাখাঁ এক্সপ্রেস’ বন্ধ

প্রকাশিতঃ ১২:৩৪ অপরাহ্ণ, বৃহঃ, ১২ মার্চ ২০

নিউজ ডেস্ক : আজ থেকে বন্ধ হয়ে গেলো ঈশা খাঁ এক্সপ্রেস। ট্রেনটি কমলাপুর থেকে ময়মনসিংহ চলাচল করতো। যাত্রাপথে ট্রেনটি গাজীপুর জেলা, নরসিংদী জেলা ও কিশোরগঞ্জ জেলাকে সংযুক্ত করতো।

মিটারগেজ রেলপথে চলাচল করা এই ট্রেনটি যাত্রাপথে থাকা প্রায় সকল স্টেশনে যাত্রা বিরতি দেয়। এই স্টেশন সংখ্যা ৪১ টি। তাই গরীবের ট্রেন বলেই এর পরিচিতি ছিলো।

সবচাইতে ছোট কিন্তু ওভারলোড ট্রেন হিসেবেও এর খ্যাতি ছিল বিশ্বজোড়া। বাংলাদেশতো বটেই দক্ষিণ এশিয়ার সবচাইতে ছোট ট্রেন এটি। সর্বশেষ মাত্র ৪টি বগি নিয়ে চলাচল করতে এই ট্রেন। এর মধ্যে ৩টি প্যাসেঞ্জার বগি এবং একটি মালবাহী বগি ছিল।

ট্রেনটি ঢাকা থেকে ছাড়ে সকাল ১১টা ৩০ মিনিটে, ময়মনসিংহ পৌঁছায় রাত ৯টা ৪৫ মিনিটে। ময়মনসিংহ থেকে ছাড়ে দুপুর ২ টায়, ঢাকা পৌঁছায় রাত ১১টায়। ট্রেনটি বন্ধ হয়ে যাওয়া ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন যাত্রীরা।

রেলযাত্রী শেখ মোহাম্মদ মোস্তফা বলেন, ময়মনসিংহ এমনিতেই অবহেলিত একটি অঞ্চল। তার উপর আবার ট্রেন অফ করে দিচ্ছে রেলওয়ে, এতে করে লোকাল ট্রেনের যাত্রীদের সমস্যা হবে। যারা বেশি ভাড়া দিয়ে আন্তঃনগর বা মেইল ট্রেনে চলাচল করতে পারতো না তাদের একমাত্র লোকাল ট্রেন ভরসা ছিল এবং তারা লোকাল ট্রেনের মাধ্যমে অল্পখরচে মালামাল নিয়ে যেতে পারতো।

হিমন আহমেদ নামে এক যাত্রী বলেন, আমরা ময়মনসিংহের মানুষের কি কিছুই করার নেই? আমরা না পেলাম কোন নতুন ট্রেন না পেলাম নতুন রেক। যেই লোকাল ট্রেন গুলো আছে সেগুলোকে আবার বন্ধ করে দিচ্ছে, আসল উদ্দেশ্যটা কি?

ট্রেন বন্ধে ক্ষোভ জানিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আশরাফুল হাসান সামির নামে একজন লিখেছেন গজব পড়েছে রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলে। লোকাল ট্রেন বন্ধ। নিজেরা নতুন ট্রেন নামিয়ে ইঞ্জিন সংকট তৈরি করে এখন লোকাল ট্রেন বন্ধ করে কি ধরনের যাত্রী সেবা দিচ্ছে। অথচ রেলে সবচেয়ে বেশী আয় করে এই পূর্বাঞ্চল থেকেই। এই ব্যর্থতার দায় কার??

ময়মনসিংহ স্টেশন সুপার জহরুল ইসলাম জানান, ঈশা খাঁ এক্সপ্রেস বন্ধ করার আদেশ পাইছি। কি কারণে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে জানিনা।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ