নেতাদের আশ্বাসে আন্দোলন সরিয়ে সমঝোতায় ছাত্রলীগের পদবঞ্চিতরা

প্রকাশিতঃ ১১:৪৭ পূর্বাহ্ণ, সোম, ২০ মে ১৯

স্টাফ রিপোর্টারঃ দীর্ঘ ৪ ঘন্টার সমঝোতার বৈঠকের পর নিজেদের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি সরিয়ে একসাথে কাজ করার অঙ্গীকার করেছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের বিবাদমান দুটি পক্ষ।

উভয়েই সংগঠনের ইতিহাস ঐতিহ্যকে সম্মান করে নব উদ্যোমে কাজ করা এবং আলোচনার মাধ্যমে নিজেদের ভুল সংশোধনের অঙ্গীকার করেছে।

শনিবার(১৯/৫/১৯) ইফতারের পর পরই ছাত্রলীগের সভাপতি /সাধারণ সম্পাদক ও বিদ্রোহীদের নিয়ে আলোচনায় বসে ছাত্রলীগের দায়িত্বপ্রাপ্ত আয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় নেতারা।

আলোচনায় উপস্থিত ছিলে আওয়ামীলীগের যুগ্ন-সাধারন সম্পাদক এডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক, যুগ্ন- সাধারন সম্পাদক আব্দুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক বাহাউদ্দিন নাছিম, সাংগঠনিক সম্পাদক বি.এম মোজাম্মেল হক ও সাবেক ঢাকসুর সমাজকল্যাণ সম্পাদক ও বর্তমান স্বেচ্ছাসেবকলীগ সভাপতি এডভোকেট মোল্লা মোঃ আবু কাওছার।

পদবঞ্চিতদের মধ্যে উপস্থিত ছিলে নকিবুল ইসলাম সুমন, সাবেক উপ-দপ্তর সম্পাদক বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, বি.এম লিপি আক্তার সভাপতি রোকেয়া হল ছাত্রলীগ ও বর্তমান কমিটির উপ-সংস্কৃতি সম্পাদক, তিলত্বমা শিকদার,সদস্য ঢাকসু ও উপ-সংস্কৃতি সম্পাদক বাংলাদেশ ছাত্রলীগসহ কয়েকজন সাবেক নেতাকর্মী।

এছাড়াও আলোচনায় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী।

আওয়ামী সভাপতির থানমন্ডি কার্যালয়ে আলোচনা শুরু হয়ে প্রায় চার ঘন্টা ব্যাপি আলোচনা হয়।

আলোচনা শেষে রাত আনুমানিক ১ টার দিকে সেচ্ছাসেবকলীগ সভাপতি মোল্লা আবু কাওছার বিদ্রোহীদের সাথে দেখা করতে রাজু ভাস্কর্যে যান।

সেখানে গিয়ে অনশনকারিদের কে গৃহীত সিদ্ধান্তের কথা জানান এবং সকল দাবি মেনে নেওয়ার প্রতিশ্রুতি ব্যাক্ত করেন।

পদবঞ্চিতদের তিনি বলেন, বিতর্কিতদের তালিকাটি নিয়ে তদন্ত করে বিতর্কিতদের বাদ দেওয়া হবে। তবে সেক্ষেত্রে একটি বিষয় তিনি জানান, বিতর্কিতদের লিস্টে এমন কিছু নাম আছে যে নামগুলো স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী দিয়েছেন এ বিষয়ী তিনই সিদ্ধান্ত নিবেন।

আন্দোলনকারি এক শিক্ষার্থী বলেন পরবর্তীতে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটি এক্সট্রেন্ড করার ও প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন ঢাকসুর সাবেক এই নেতা। তবে এ বিষয়ে কোন নির্দিষ্ট সময়ের কথা বলা হয়নী।

তাছাড়া আন্দোলনকারীদেরকে প্রধানমন্ত্রীর সাথে সাক্ষাৎ করিয়ে দেওয়ার ও প্রতিশ্রুতি দেন তিনি।

ঢাকসুর সাবেক এই নেতা আন্দোলন কারিদের সাথে কথা বলার পরপরেই আন্দোলন প্রত্যাহার করে নেয় ছাত্রলীগের বিদ্রোহী গ্রুপ।

উল্লেখ্য, গত শনিবার রাতে ছাত্রলীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক বিদ্রোহীদের নিয়ে সৃষ্ট সমস্যা সমাধানের লক্ষ্যে ঢাকা বিশ্বাবিদ্যালয়ের টিএসসিতে আলোচনায় বসে। আলোচনার এক পর্যায়ে দু’পক্ষের মধ্যেই উত্তেজনা ছড়িয়ে পরে। এক পর্যায়ে হাতাহাতি হয় বলে ও দাবি করেন আন্দোলনকারি গ্রুপটি। তবে এ অভিযোগ অস্বীকার করে শুধু মাত্র হট টক হওয়ার কথা বলেন ছাত্রলীগ সাধারন সম্পাদক।

উক্ত হাতাহাতির জের ধরেই গতকাল মধ্যে রাত থেকে রাজু ভাস্কর্যে অনশন করে আসছিল ছাত্রলীগের পদবঞ্চিত গ্রুপটি।

সজা/জাই/এমএম

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ