নৌযান শ্রমিকদের কর্মবিরতি প্রত্যাহার

প্রকাশিতঃ ৪:৫৪ অপরাহ্ণ, বুধ, ২৭ নভেম্বর ১৯

নিউজ ডেস্ক: সকাল থেকে নৌযান শ্রমিক অধিকার সংরক্ষণ ঐক্য পরিষদের ১৫ দফা দাবিতে ডাকা শ্রমিকদের কর্মবিরতি প্রত্যাহার করা হয়েছে।

বুধবার দুপুর সাড়ে ১২টায় বাংলাদেশ নৌযান শ্রমিক লীগের সভাপতি ওমর ফারুক ধর্মঘট প্রত্যাহারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, শ্রম মন্ত্রণালয় থেকে দাবি মেনে নেয়ার আশ্বাসে আমরা কর্মবিরতি প্রত্যাহার করেছি। এখন বরিশালে চরমোনাই পীরের মাহফিলে অংশগ্রহণ করতে পারবেন যাত্রীরা। এখন থেকে যাত্রীবাহী নৌযান চলাচল করবে, তবে মালবাহী নৌযানে কর্মবিরতি চলবে।

বুধবার সকাল থেকে এ কর্মবিরতি শুরু করেন নৌযান শ্রমিক অধিকার সংরক্ষণ ঐক্য পরিষদ। নৌযান শ্রমিকদের কর্মবিরতির ফলে সকালে ঢাকা থেকে কোনো লঞ্চ ছেড়ে যায়নি।

শ্রমিক ও মালিকদের পাল্টাপাল্টি ধর্মঘটে ভোগান্তিতে পড়েছেন সাধারণ যাত্রী ও ব্যবসায়ীরা। দূরদূরান্ত থেকে অসংখ্য যাত্রী ঘাটে গিয়ে জানতে পারেন লঞ্চ চলাচল বন্ধ। গন্তব্যে যেতে না পেরে তাদের আবার ফিরে যেতে হচ্ছে। পাল্টাপাল্টি এ ধর্মঘটে চরম দুর্ভোগে পড়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন তারা।

ঢাকা নদীবন্দরের (সদরঘাট) যুগ্ম পরিচালক (নৌ নিরাপত্তা ও ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা) আলমগীর কবির বলেন, ১৫ দফা দাবিতে নৌযান শ্রমিক স্বার্থরক্ষা ঐক্য পরিষদ সকাল থেকে ধর্মঘট ডাকে। তাদের প্রধান দাবি, বেতন বৃদ্ধি করা, নিরাপত্তা নিশ্চিত করা এবং চাঁদাবাজি বন্ধ করা।

মানববন্ধন থেকে শ্রমিকরা নৌ শ্রমিকদের খোরাকি ভাতা চালু, জ্বালানি তেল সরবরাহের পাইপলাইন স্থাপনের সিদ্ধান্ত বাতিল, ডিজি শিপিংয়ের হয়রানি বন্ধ, সুনামগঞ্জের ছাতকের ভুয়া ইজারা বাতিল এবং নৌপথে চাঁদাবাজি বন্ধসহ ১৫ দফা দাবি জানান।

শতভাগ খাদ্যভাতা ও সুপেয় পানির খরচ আদায়সহ ১৫ দফা দাবিতে ২৬ নভেম্বর থেকে টানা কর্মবিরতির ঘোষণা দিয়েছিলেন নৌযান শ্রমিকরা।

গত ২০ নভেম্বর জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে শ্রমিক অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ আয়োজিত এক মানববন্ধন থেকে এ কর্মসূচির ঘোষণা দেয়া হয়।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ