পাচারকালে ৫ কোটি টাকার স্বর্ণসহ এক ব্যক্তি আটক

প্রকাশিতঃ ১২:৪৯ অপরাহ্ণ, মঙ্গল, ২৮ মে ১৯

Featured Video Play Icon

স্টাফ রিপোর্টার: অভিনব পন্থায় স্বর্ণ চোরাচালান বহনকালে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এক ব্যক্তিকে আটক করেছে কাস্টম কর্মকর্তারা।

আটককৃত ব্যক্তির নাম মো. আব্দুস সালাম (৪৮)। তার বাড়ি গাজিপুর। এসময় তার কাছ থেকে ১০ কেজি ৩ শ গ্রাম স্বর্ণ পাওয়া যায়।

সোমবার (২৭ মে) রাত ১১টার দিকে তাকে আটক করা হয়।

কাস্টমস কর্মকর্তারা জানান, কাস্টম হাউসের কমিশনারের নিকট আসা এক গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ওই ব্যক্তিকে আটক করা হয়।

আটককৃত আ. সালাম সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্সের SQ446 নং ফ্লাইটে রাত পৌনে ১১টার দিকে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পোঁছান। গ্রীন চ্যানেল অতিক্রমের পরে তার কাছে কোনও শুল্ক কর আরোপযোগ্য পণ্য আছে কি না জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি অস্বীকার করেন।

পরে আর্চওয়ে মেশিনের মাধ্যমে চেকিং করা হলে তার পরনের প্যান্টের মধ্যে ধাতব পদার্থের সংকেত পাওয়া যায়। এরপরে তার প্যান্ট এর বিভিন্ন অংশে লুকিয়ে রাখা অবস্থায় সাদা রঙ এর স্কচটেপে মোড়ানো ২টি প্যাকেট উদ্ধার করা হয়।

বিমানবন্দরে কর্মরত বিভিন্ন সংস্থার উপস্থিতিতে প্যাকেট ২টি খুললে তার ভেতরে ১০৩ টি স্বর্ণবার পাওয়া যায়। যার প্রতিটি বারের ওজন ১০০ গ্রাম। আটককৃত স্বর্ণের মোট ওজন ১০ কেজি ৩শ গ্রাম। যার আনুমানিক মুল্য ৫ কোটি ১৫ লক্ষ টাকা

তবে আটককৃ যাত্রী লিখিতভাবে জানান, এই স্বর্ণের প্রকৃত মালিক এইচ.এম নুরুজ্জামান ওরফে জিকো নামক এক ব্যক্তি, যার বাড়ি ঢাকার খিলক্ষেতে। যাত্রীর মোবাইলে জিকো’র ছবি এবং পাসপোর্টের ছবিও পাওয়া যায়।

যাত্রী আরও জানান,বিমানবন্দরে কর্মরত কোনও এক সংস্থার এক কর্মকর্তা এই স্বর্ণ গ্রহণ করবেন এবং তিনিই “জিকো” এর নিকট এই স্বর্ণ হস্তান্তর করবেন।

এমনকি এই যাত্রী শুধুমাত্র মে মাসে ৫ বার সিঙ্গাপুরে যাতায়ত করেছেন এবং পূর্বেও বিমানবন্দরে কর্মরত ওই কর্মকর্তার মাধ্যমে স্বর্ণ হস্তান্তর করেছেন বলে তথ্য পাওয়া যায়। তবে বিমানবন্দরে কর্মরত ওই কর্মকর্তার ব্যাপারে বিশদ কোনও তথ্য দিতে পারেননি আটককৃত ব্যক্তি।

আটককৃত আ. সালামকে বিমানবন্দর থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। দি কাস্টমস এ্যক্ট ১৯৬৯ এবং ১৯৭৪ এর বিশেষ ক্ষমতা আইনের আওতায় তার বিরুদ্ধে সব ধরনের আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান কর্মকর্তারা।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ