পিৎজা ডেলিভারি বয় করোনা আক্রান্ত, কোয়ারান্টাইনে ৭২পরিবার

প্রকাশিতঃ ৩:২৩ অপরাহ্ণ, বৃহঃ, ১৬ এপ্রিল ২০

নিউজ ডেস্ক : পিৎজা ডেলিভারি বয় করোনা আক্রান্ত হওয়ায় ৭২ পরিবারকে হোম কোয়ারান্টাইনে রাখা হয়েছে। এ ঘটনা ঘটেছে ভারতের দিল্লিতে।

জানা যায়, জোমাটোর ১৯ বছর বয়সী এক পিৎজা ডেলিভারি বয়ের শরীরে করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হওয়ায় আতঙ্ক ছড়িয়েছে দিল্লিতে। দক্ষিণ দিল্লির ওই জোমাটো ডেলিভারি বয় সাম্প্রতিক সময়ে মোট ৭২ টি পরিবারকে খাবার সরবরাহ করেছিলেন।

ওই তরুণ শেষ ১৫ দিন অর্থাৎ ১২ এপ্রিল পর্যন্ত তিনি দক্ষিণ দিল্লির বিভিন্ন এলাকার ৭২ টি পরিবারকে খাবার পৌঁছে দেন। ফলে ওই পরিবারগুলোকেও কোয়ারান্টাইন করে রাখা হয়েছে এবং তাদের কারও শরীরে করোনা সংক্রমণ ছড়িয়েছে কিনা সেই দিকে নজর রাখা হচ্ছে।

এদিকে করোনা আক্রান্ত ওই ডেলিভারি বয়কে দিল্লির আরএমএল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পাশাপাশি ওই ডেলিভারি বয়ের সংস্পর্শে আসা ২০ জন সহকর্মীকেও দিল্লিতে কোয়ারান্টাইন করে রাখা হয়েছে, তাঁদের শরীরেও সংক্রমণ ছড়িয়েছে কিনা হবে পরীক্ষা।

এক বিবৃতিতে ফুড ডেলিভারি জায়ান্ট জোমাটো জানিয়েছে, ওই ডেলিভারি বয়ের বিদেশ ভ্রমণের কোনও ইতিহাস নেই। সন্দেহ করা হচ্ছে যে কোনও আক্রান্ত পরিবারে পিৎজা দেওয়ার সময়েই তাঁর শরীরে ওই রোগটি বাসা বাঁধে।

জোমাটো আরও বলেছে যে, “ওই ডেলিভারি বয় যাঁদের যাঁদের বাড়িতে পিৎজা দিয়ে এসেছে তাঁদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে এবং সরকারি তরফে তাঁদের কোয়ারান্টাইন করে রাখার ব্যবস্থাও করা হয়েছে”। পাশাপাশি ওই ডেলিভারি বয় যে রেস্তোঁরা থেকে নিয়মিত ডেলিভারি নিয়ে যেত সেটিও বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

“COVID-19 এর সংক্রমণ যে কোনও আক্রান্ত ব্যক্তির থেকেই ছড়াতে পারে, আমাদের যে ধরণের কাজ তাতে সকলের পক্ষে পুরোপুরি বিচ্ছিন্ন হয়ে থাকা বা সবসময় সামাজিক দূরত্ব অবলম্বন করা কার্যত অসম্ভব, বিশেষত যখন আমাদের খাদ্যের মতো প্রয়োজনীয় সামগ্রীর জন্যে বহু মানুষের সঙ্গে মিলিত হতে হয় … তবে আমরা বিশ্বাস করি যে আমাদের সংস্থার কোনও কর্মীই জেনে শুনে এই কাজ করেনি, যদি ওই ডেলিভারি বয় জানতেন যে তিনি COVID-19 এ আক্রান্ত হয়েছেন তবে তিনি নিশ্চয়ই আমাদের জানাতেন এবং আমরাও সতর্কতা অবলম্বন করতাম”, একথাও বলে ওই ফুড ডেলিভারি সংস্থা।

সরকারি পরিসংখ্যান অনুসারে বর্তমানে দিল্লিতে ৩০ জনেরও বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে। দেশের রাজধানীতে এখন ১,৫৭৮ জন ওই মারণ রোগে ভুগছেন।

সূত্র: এনডিটিভি

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ