পুরুষ, তোমাকে কয়েকটা কথা বলার ছিল!

প্রকাশিতঃ ৯:৫৩ অপরাহ্ণ, বৃহঃ, ১৯ নভেম্বর ২০

ডা. মারুফ রায়হান খান :

পুরুষ, তোমাকে কয়েকটা কথা বলার ছিল এই পুরুষ দিবসে।

তুমি পুরুষ মানে এই না যে তোমার কখনও মন খারাপ হয় না৷ প্রচণ্ড মন খারাপ নিয়েও আরেহ কিচ্ছু হয় নাই, সব ঠিকঠাক এমন ভাব করে নিজের সাথে প্রতারণা করবা না।

পুরুষ মানুষের যদি কান্নাই না আসবে আল্লাহ তায়ালা তো তাহলে তোমাদের চোখে পানি দিতো না। তোমার কান্নার প্রয়োজন হবে বলেই তোমার চোখে অশ্রু আছে। পুরুষ মানুষের কাঁদতে হয় না, কাঁদতে পারে না এ ধরনের মান্ধাতা আমলের ধারণা বাদ দাও। জোর করে ঠোঁট চেপে চোয়াল শক্ত করে কান্না আটকে রাখার নাম পৌরুষ না।

অভিমান তোমারও হয়। তোমারও ভালোবাসার বিনিময়ে ভালোবাসা পেতে ইচ্ছে করে, কেয়ারের বিনিময়ে কেয়ার পেতে ইচ্ছে করে, শ্রদ্ধার বিনিময়ে স্নেহ পেতে ইচ্ছে করে এটা অস্বীকার করবার তো জো নেই। জোর করে অস্বীকার কেন করো? এতে জীবন খুব রুক্ষ হয়ে যায়।

তোমারও মাঝেমাঝে একটা ফুল, একটা চকোলেট পেতে ভালো লাগে। কেউ কিছু উপহার দিতে চাইলে অমন কঠিনভাবে না করে দাও কেন? তোমার মনটারও তো একটু খুশি হবার অধিকার নেই? ঈদে তোমার জন্যেও একটা নূতন পাঞ্জাবি কিনো।

তোমার দায়িত্ব কি শুধুই সংসারের ঘানি টানতে টানতে ক্লান্ত হয়ে ঘরে ফেরা? তোমারও কি একটু আরাম-আয়েশের প্রয়োজন নেই? তোমারও কি একটু অবকাশের প্রয়োজন নেই? নিজের জন্য তোমার একটু সময়ের প্রয়োজন নেই? নিজেকেও তো একটু সময় দিতে হবে, না কি? নিজের ওপর আর কতো অত্যাচার করবা?

শেষ কবে তুমি অসুস্থ হয়েছিল মনে পড়ে? মনে পড়ছে না? জ্বরে গা পুড়ে গেলে কেউ কপালে হাত রাখুক এই চাওয়াটা অপরাধ না তোমার, পুরুষ। একটুখানি আহ্লাদ, একটুখানি অকারণ অভিমানী চোখ তোমারও যে ভালো লাগে বলতে দ্বিধা কেন করো।

লুকাতে লুকাতে, ভান করতে করতে, ভেতরে স্বচ্ছ জল নিয়ে উপরে মেকি শক্ত খোলস জড়িয়ে আর কতোদিন?

কতোদিন? এক জীবন কি কাটিয়ে দেবে অভিনয় করতে করতে? নিজের বলে কিছু নেই? পুরুষ মানুষের এটা করতে নেই, অমন হতে নেই সমাজের এমন বানিয়ে দেওয়া নিয়ম মেনে আর কতোকাল চলবে?

তোমার ভালো লাগার কথা, মন্দ লাগার কথা বলতে শেখো। পুরুষ হবার আগে তুমি তো আস্ত মানুষ হও একটা। মানুষের হাসি আছে কান্না আছে। ভালো লাগা আছে খারাপ লাগা আছে। তোমারও থাকুক।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।