পুলিশের ধারণা প্রেমঘটিত: বদরগঞ্জে কলেজ ছাত্রীর আত্মহত্যা

প্রকাশিতঃ ৫:৪৪ অপরাহ্ণ, বুধ, ২ সেপ্টেম্বর ২০

রংপুর প্রতিনিধি : জেলার বদরগঞ্জ উপজেলার পল্লীতে মুক্তা খাতুন (১৮) নামে এক কলেজ ছাত্রী গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যার ঘটনায় থানায় ইউডি মামলা হয়েছে। সে উপজেলার গোপিনাথপুর শালবাড়ি গ্রামের হাবিবুর রহমানের মেয়ে। এদিকে পুলিশ ধারণা করছে প্রেমঘটিত বিষয়ে ওই কলেজ ছাত্রী আত্মহত্যা করতে পারে।

আজ বুধবার ওই কলেজ ছাত্রীর মরদেহ ময়না তদন্তের জন্য রংপুরে মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

জানা গেছে, বদরগঞ্জ উপজেলার গোপিনাথপুর ইউনিয়নের শালবাড়ি এলাকার আমবাগানবাড়ি গ্রামের হাবিবুর রহমানের মেয়ে মুক্তা খাতুন চলতি বছর এইচএসসি পাশ করে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির জন্য প্রস্তুুতি নিচ্ছিল। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে ওই কলেজ ছাত্রী বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে।

তার মা আয়েশা বেগম দাবি করে বলেন, সে দীর্ঘদিন ধরে পেটের পীড়ায় ভুগছিল। রোগ যন্ত্রণা সইতে না পেরে সে আত্মহত্যা করেছে।

বদরগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) আরিফ আলী বলেন, পেটের পীড়ায় নয়; প্রেম ঘটিত বিষয়ে ওই কলেজছাত্রী আত্মহত্যা করতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এ ঘটনায় বদরগঞ্জ থানায় একটি ইউডি মামলা হয়েছে। ময়না তদন্তের জন্য মরদেহ রংপুর মর্গে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে এলাকাবাসী জানায়, সম্প্রতি ওই কলেজ ছাত্রীর বিয়ে ঠিক হয়েছিল। ওই বিয়েতে মত ছিল না কলেজ ছাত্রীর। কারণ তার এক যুবকের সাথে প্রেমের সর্ম্পক ছিল। সেই কারণে আত্মহত্যার পথ বেছে নিতে পারে সে।

সময় জার্নাল/

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।