খালি বোতল ফেরত নিতে
প্লাস্টিক পণ্য উৎপাদনকারীদের প্রতি মেয়র আতিকের আহ্বান

প্রকাশিতঃ ৫:২০ অপরাহ্ণ, রবি, ১৫ ডিসেম্বর ১৯

নিউজ ডেস্ক: ব্যবহৃত প্লাস্টিকের খালি বোতল ফেরত নিতে উৎপাদনকারীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম।

তার ভাষায়, “ঢাকা বিমানবন্দরে ২৫ টাকার পানির বোতল ব্যবহার শেষে ফেরত দিলে ৫ টাকা পাওয়া যায়। প্লাস্টিক পণ্য উৎপাদনকারী যেসব প্রতিষ্ঠান আছে, তাদের সঙ্গে আমি কথা বলেছি। আমরা চাই পরিবেশ বাঁচাতে এ ধরনের একটি ক্যাম্পেইন আপনারা চালু করুন।

“বোতলের মধ্যে লেখা থাকবে যে খালি বোতল ফেরত দিলে ১ টাকা। তো কারও কাছে বিশটি বোতল থাকল মানে তার কাছে বিশটি টাকা থাকল। এটা করতে পারলে মানুষ উদ্বুদ্ধ হবে, আর আমরাও শহরকে পরিচ্ছন্ন রাখতে পারব।”

রোববার মহাখালীর টিঅ্যান্ডটি কলোনি মাঠে প্লাস্টিক বোতল নিয়ে আয়োজিত এক প্রদর্শনীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, খালি বোতল ফেরত নিয়ে পুনর্ব্যবহার করলে পরিবেশ দূষণ কম হবে।

তিনি বলেন, প্লাস্টিক ব্যাগের বিকল্প হিসেবে পাটের ব্যাগ চালু করতে সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে উদ্যোগ নেওয়া হবে।
“এসব ব্যাগের ব্যবহার বাড়াতে আমরা প্রচার চালাব। কীভাবে মানুষকে উদ্বুদ্ধ করতে পারি সেটা নিয়েও ভাবছি। প্লাস্টিকের বিকল্প কী ব্যাগ আমরা দিতে পারি বাজারে, সেটা নিয়ে সিটি করপোরেশন আলোচনা করছে।”

স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন বিডি ক্লিনের আয়োজনে এ প্রদর্শনীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন স্থানীয় সরকারমন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম।

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আবদুল হাই, প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপক কমডোর মনজুর হোসেনসহ উর্ধ্বতন কর্মকর্তারাও উপস্থিত ছিলেন।
মুক্তিযুদ্ধে বিজয়ের মাস ডিসেম্বরে ত্রিশ লাখ শহীদের স্মরণে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে ত্রিশ লাখ খালি প্লাস্টিকের বোতল সংগ্রহ করেছে বিডি ক্লিন।

এসব বোতল দিয়ে তৈরি বঙ্গবন্ধুর ছবি, নৌকা, বাংলাদেশের পতাকা, বাংলাদেশের মানচিত্র, চেয়ার, টেবিলসহ নানা সামগ্রী স্থান পেয়েছে প্রদর্শনীতে। এমনকি উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অতিথিদের বসার ব্যবস্থাও হয়েছিল পেট বোতলে তৈরি চেয়ারে

আয়োজকরা জানান, পরিবেশ বাঁচাতে প্লাস্টিকের বোতালের বিপদ সম্পর্কে সচেতন করাই তাদের উদ্দেশ্য। প্রদর্শনী শেষে এসব বোতল পুনঃপ্রক্রিয়াজাত করার জন্য দিয়ে দেওয়া হবে।

প্লাস্টিকের ব্যবহার কমাতে বিভিন্ন মানের পাটের ব্যাগ তৈরির জন্য পাট শিল্প সংশ্লিষ্ট সরকারি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে আলোচনা করার কথাও জানান আতিকুল ইসলাম।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ