বগুড়ায় জেএমবির উত্তরাঞ্চলীয় প্রধানসহ গ্রেফতার ৪

প্রকাশিতঃ ২:২৪ অপরাহ্ণ, রবি, ২৪ নভেম্বর ১৯

সময় জার্নাল ডেস্ক: বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলা থেকে নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন জামাআতুল মুজাহিদীন বাংলাদেশের (পুরোনো জেএমবি) উত্তরাঞ্চলীয় প্রধানসহ চারজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। তাদের কাছ থেকে অস্ত্রসহ গ্রেনেড তৈরির বিপুল সরমঞ্জাদি উদ্ধার হয়েছে।

শনিবার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে শিবগঞ্জ উপজেলার পাকুড়তলা এলাকা থেকে এই চারজনকে গ্রেফতার করা হয়। পুলিশ সদর দপ্তরের এলআইসি শাখা ও জেলা পুলিশের গোয়েন্দা শাখার যৌথ অভিযানে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

রোববার বেলা ১১টায় বগুড়ার পুলিশ সুপারের সন্মেলন কক্ষে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এসব কথা জানান পুলিশ সুপার আলী আশরাফ ভূঞা।

তিনি জানান, শনিবার দিবাগত রাত একটার দিকে শিবগঞ্জ উপজেলার পাকুরতলা বাসস্ট্যান্ডে জনৈক কনকের টেলিকম দোকানের সামনে বগুড়া-রংপুর মহাসড়কের পূর্ব পাশে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালানো হয়। সেখানে জঙ্গিরা গোপন বৈঠক করছিল। তাদের এ বিষয়ে জানতে চাইলে কয়েকজন পালিয়ে গেলেও ৪ জনকে গ্রেফতার করা হয়। তাদের শরীর তল্লাশি করে তিন রাউন্ড গুলিসহ পিস্তল, দেশীয় অস্ত্র, বিস্ফোরক, গ্রেনেড তৈরির বিপুল সরমঞ্জাদি উদ্ধার করে।

গ্রেফতাররা হলেন, পুরাতন জেএমবির রংপুর ও রাজশাহী বিভাগের দাওয়াতি বিভাগের প্রধান আতাউর রহমান ওরফে হারুন ওরফে আরাফাত (৩৪), পুরাতন জেএমবির রংপুর ও রাজশাহী বিভাগের বায়তুল বিভাগের প্রধান নওগাঁ জেলার দায়িত্বশীল কর্মকর্তা মিজানুর রহমান ওরফে নাহিদ ওরফে মোছাল (৪২), পুরাতন জেএমবির গাইবান্ধা জেলার দায়িত্বশীল জহুরুল ইসলাম ওরফে সিদ্দিক (২৭) এবং পুরাতন জেএমবির বগুড়া জেলার প্রধান মিজানুর রহমান (২৪)।

পুলিশ সুপার জানান, গ্রেফতারদের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক ও অস্ত্র আইনে পৃথক দুটি মামলা দায়ের করা হবে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ১০ দিনের রিমান্ড চেয়ে আবেদন করা হচ্ছে।

সাংবাদিকদের প্রশ্নর জবাবে জানান, তাদের খারাপ কোন উদ্দেশ্য ছিল। সেজন্যই এই গোপন বৈঠক করছিল। রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসা করলে বিস্তারিত জানা যাবে।

প্রেস ব্রিফিংয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (পদোন্নতিপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার) আরিফুর রহমান মণ্ডল, ডিবি ইন্সপেক্টর আছলাম আলী উপস্থিত ছিলেন।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ