বিএমডিসির অনুমোদনে সাতক্ষীরা মেডিকেলে আসছেন ৪ ভারতীয় চিকিৎসক

প্রকাশিতঃ ৭:৫৩ অপরাহ্ণ, বৃহঃ, ২১ নভেম্বর ১৯

সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এসে চিকিৎসার অনুমতি পেলেন ৪ ভারতীয় ডাক্তার। তাদেরকে চিকিৎসা প্রদানের অনুমতি দিয়েছে বাংলাদেশ মেডিকেল এন্ড ডেন্টাল কাউন্সিল (বিএমডিসি)। গত ১৩ নভেম্বর (বুধবার) বিএমডিসির রেজিস্ট্রার স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

শর্ত সাপেক্ষে ভারতীয় ডাক্তারদেরকে ২ দিনের জন্য (আগামী ৩০ নভেম্বর ও ১ ডিসেম্বর) কাজের জন্য সাময়িক রেজিস্ট্রেশন দেয়া হয়েছে বলে বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ অধ্যক্ষের আবেদনক্রমে ভারতের ব্যাঙ্গালোরের বেসরকারি কসাইস হাসপাতালের চার চিকিৎসককে অনুমতি দানে বিএমডিসি সম্মত হয়েছে। তবে তাদের দিয়ে চিকিৎসার ব্যাপারে প্রিন্ট বা ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ায় কোন ধরনের বিজ্ঞাপন দেয়া যাবে না। তাছাড়া এ চিকিৎসকরা যদি সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ ছাড়া অন্য কোথাও চিকিৎসা দেয়, তবে তাদেরকে দেয়া এই অনুমতি এবং সাময়িক রেজিস্ট্রেশন বাতিল করা হবে এবং আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ ব্যাপারে বিএমডিসির ডেপুটি রেজিস্ট্রার ডা. মো. লিয়াকত হোসেন বলেন, ভারতীয় ৪ চিকিৎসক স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে অনুমতি নিয়ে বিএমডিসিতে রেজিস্ট্রেশনের জন্য আসে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর যেহেতু তাদেরকে অনুমতি দিয়েছে, সেহেতু আমরা সবকিছু যাচাই বাচাই করার পর আমাদের নিময়ম কানুনের মধ্যে যদি পরে তাহলে সে যদি সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসায় নিয়োজিত হয়, তাহল সে বিষয়টা বিবেচনা করা হয়। আরেকটি ব্যাপার হলো, বিদেশী চিকিৎসকদের টেকনোলজি ট্রান্সফারের আওতায় দীর্ঘ সময় যারা বাংলাদেশে কাজ করে তাদেরকে ওইভাবে অনুমতি দেওয়া হয়। এখন তাদের ক্ষেত্রে যে বিষয়টি হয়েছে তা হলো, আমরা দেখছি যে ফেসবুকে এটি নিয়ে নানা আলোচনা সমালোচনা হচ্ছে। এখন আমাদের বিএমডিসির নীতি নির্ধারক যারা আছেন- তারা এটি নিয়ে ব্যাপক আলাপ আলোচনা করছেন। মন্ত্রণালয়ের সাথেও কথাবার্তা বলা হচ্ছে। বৃহস্পতিবার বিকালের মধ্যেই এ নিয়ে মিটিংয়ে একটা সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

অনুমতি বাতিল বা স্থগিতের চিন্তা আছে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এটি নিয়ে অগ্রিম কিছু বলা যায় না যতোক্ষণ পর্যন্ত সিদ্ধান্ত কার্যকর না হয়। এনিয়ে বিস্তারিত আজকের মিটিংয়ের পরই জানা যাবে। এ নিয়ে আগাম কিছু বলা উচিত হবে না বলে মনে করি।

ভারতীয় চিকিৎসকরা কার খরচে এদেশে আসবে -এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, তারা কিভাবে আসেন, কার তত্ত্বাবধানে আসেন, অথবা কার অর্থায়নে আসেন, সেটি দেখভাল করার কোন সুযোগ আমাদের (বিএমডিসি) নাই। এ বিষয়টা আমাদের সম্পৃক্তও নয়। ব্যক্তিগতভাবে কোন সংগঠন বা কোন ব্যক্তি হয়তো তাদের পৃষ্ঠপোষকতা করে থাকবে, তবে এ বিষয়টা আমাদের তলিয়ে দেখার কোন সুযোগ নাই। কোন সংগঠন কোন প্লাটফর্মের মাধ্যমে যদি তারা আসেন, তাহলে তারাই হয়তো তাদের খরচ বহন করবে।

পরীক্ষা না দিয়েই তারা কিভাবে বিএমডিসির রেজিস্ট্রেশন পাবেন এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর যদি তাদেরকে অনুমতি দিয়ে দেয়, তাহলে তো এখানে আমাদের কিছুই বলার থাকে না। তারা স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে অনুমতি নিয়ে বিএমডিসিতে এসেছে, আমরা যাচাই বাচাই করে অনুমতি দিয়েছি।

এদিকে, ভারতীয় ৪ চিকিৎসককে দেশের সরকারি মেডিকেলে চিকিৎসার অনুমতি দেয়ায় নিন্দা ও প্রতিবাদের ঝড় উঠেছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ