বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত শনাক্তের সংখ্যা ১ কোটি ছাড়াল

প্রকাশিতঃ ৯:৪৮ পূর্বাহ্ণ, রবি, ২৮ জুন ২০

বিশ্বব্যাপী নভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্ত শনাক্তের সংখ্যা এক কোটি ছাড়িয়েছে। আর, করোনায় মারা গেছেন পাঁচ লক্ষাধিক মানুষ। দৈনিক করোনা সংক্রমণের তালিকায় আবারো শীর্ষ অবস্থানে চলে এসেছে যুক্তরাষ্ট্র। প্রতিবেশী দেশ ভারতে মোট আক্রান্ত শনাক্তের সংখ্যা পাঁচ লাখ ছাড়িয়েছে। এদিকে সংক্রমণ বাড়ার কারণে যুক্তরাষ্ট্র ও ব্রাজিলের নাগরিকদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা আরোপের পরিকল্পনা করছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন।
বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসের সর্বশেষ পরিসংখ্যান জানার অন্যতম ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্য অনুযায়ী, আজ রোববার সকালে বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত শনাক্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে এক কোটি ৮১ হাজার ৫২২ জনে। তাদের মধ্যে বর্তমানে ৪১ লাখ ২১ হাজার ৮৫৭ জন চিকিৎসাধীন এবং তাদের মধ্যে ৫৭ হাজার ৭৪৮ জন (২ শতাংশ) আশঙ্কাজনক অবস্থায় রয়েছে। বিশ্বে এ পর্যন্ত পাঁচ লাখ এক হাজার ২৯৮ জনের করোনায় মৃত্যু হয়েছে। সুস্থ হয়ে উঠেছে ৫৪ লাখ ৫৮ হাজার ৩৬৭ জন।

করোনা আক্রান্তের সংখ্যায় বিশ্বে শীর্ষে অবস্থান করছে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে মোট আক্রান্ত শনাক্তের সংখ্যা ২৫ লাখ ৯৬ হাজার ৫৩৭ জন। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে দক্ষিণ আমেরিকার দেশ ব্রাজিল। সেখানে আক্রান্ত শনাক্তের সংখ্যা ১৩ লাখ ১৫ হাজার ৯৪১ জন। আক্রান্ত শনাক্তের সংখ্যায় তৃতীয় স্থানে রয়েছে ইউরোপ মহাদেশের রাশিয়া। দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত শনাক্তের সংখ্যা ছয় লাখ ২৭ হাজার ৬৪৬ জন। তালিকার চতুর্থ স্থানে রয়েছে ভারত। দেশটিতে আক্রান্ত শনাক্তের সংখ্যা পাঁচ লাখ ২৯ হাজার ৫৭৭ জন।

যত দিন যাচ্ছে বিশ্বজুড়ে ততই মাথা ব্যাথার কারণ হয়ে উঠছে নভেল করোনাভাইরাস। সব দেশ ছাড়িয়ে এখনো সংক্রমণ-গতির শীর্ষে যুক্তরাষ্ট্রে। গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত ৪০ হাজারের বেশি। অবস্থা এমনই যে, আনলকের পথে হাঁটা টেক্সাস, ফ্লোরিডা ও অ্যারিজোনা অঙ্গরাজ্য তড়িঘড়ি ফের নিষেধাজ্ঞার ঘেরাটোপে ফিরতে বাধ্য হচ্ছে। দেশটির ১৬টি অঙ্গরাজ্যে সংক্রমণের হার বাড়ছে। এ পরিস্থিতিকে গুরুতর সমস্যা উল্লেখ করে মার্কিন শীর্ষ সংক্রমণ ব্যাধি বিশেষজ্ঞ ডা. অ্যান্থনি ফসি বলেছেন, করোনা শেষ করার একমাত্র উপায় হলো এক হয়ে হয়ে কাজ করা। সংবাদমাধ্য বিবিসি এ খবর জানিয়েছে।

অ্যান্থনি ফসি বলেন, ‘চীনে এ ভাইরাস ছড়ানোয় আমরা আক্রান্ত হয়েছি। ইউরোপ থেকেও আমাদের দেশে ছড়িয়েছে। এখন যুক্তরাষ্ট্রের কারণে অন্যরা আক্রান্ত হবে। এটা ঠেকানো যাবে না। তবে এটার শেষ দেখতে হলে সম্মিলিতভাবে সবাইকে ব্যবস্থা নিতে হবে। যুক্তরাষ্ট্রে বর্তমানে উপসর্গহীন করোনা আক্রান্তরা এ রোগ ছড়িয়ে দিচ্ছে।’

দক্ষিণ আমেরিকার দেশ ব্রাজিলেও করোনার সংক্রমণ ও মৃত্যু থেমে নেই। দেশটিতেও একদিনে ৪০ হাজারের বেশি মানুষ করোনায় আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছে নতুন করে। যুক্তরাষ্ট্র ও ব্রাজিলের নাগরিকদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা আরোপের পরিকল্পনা করছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন।

এদিকে, যুক্তরাজ্য সরকার কম ঝুকিপূর্ণ দেশের নাগরিকদের ক্ষেত্রে ১৪ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিনের বিধিনিষেধ তুলে নেওয়ার কথা জানিয়েছে।

প্রতিবেশী দেশ ভারতে ২৪ ঘণ্টার হিসাবে করোনায় আক্রান্ত শনাক্তের নতুন রেকর্ড হয়েছে। দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, টানা তিন দিনের অব্যাহত রেকর্ডকে ছাড়িয়ে একদিনে সাড়ে আঠারো হাজারের বেশি মানুষের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে।

এমন পরিস্থিতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে, ধনী-গরিবের বৈষম্য দূরে সরিয়ে সব দেশ করোনা চিকিৎসার সমান সুবিধা পেলে, এ ভাইরাসের রাশ টানা সম্ভব।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মহাপরিচালক টেড্রস আধানম গ্যাব্রিয়েসুস বলেন, ‘করোনা নিয়ন্ত্রণ করে মানুষের জীবন বাঁচাতে দ্রুততার সঙ্গে ভ্যাকসিন, ডায়াগনসিস ও থেরাপির ব্যবস্থা করার কোনো বিকল্প নেই, এটা এখন পরিষ্কার। কারণ, এ ভাইরাসের ঝুঁকিতে গোটা বিশ্ব। তবে এ রোগের প্রতিষেধক পাওয়ার ক্ষেত্রে সামর্থ্যবান ও সামর্থ্যহীন দেশের মধ্যে কোনো ধরনের বৈষম্য করা যাবে না।’

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।