বিশ্ব ভালোবাসা দিবসের নাটকে রাশেদ সীমান্ত

প্রকাশিতঃ ৮:৪১ অপরাহ্ণ, শনি, ৮ ফেব্রুয়ারি ২০

বিনোদন ডেস্ক: বিশ্ব ভালোবাসা দিবসের নাটকে দেখা যাবে জনপ্রিয় অভিনেতা রাশেদ সীমান্তকে। হাতে গোনা মাত্র কয়েকটি নাটকে অভিনয় করে প্রথম সারির তারকাদের কাতারে নাম উঠে এসেছে তার। ‘মধ্যরাতের সেবা’ নাটক তার ক্যারিয়ারের টার্নিং পয়েন্ট। গত মাসে বৈশাখী টিভিতে প্রচারিত ‘আমার বাবা’ নাটকটিও এখন ভাইরাল। যারাই তার নাটক দেখছেন তারাই রাশেদ সীমান্ত’র অভিনয়ের প্রশংসা করছেন।

সম্প্রতি ঢাকার উত্তরায় শুটিং সম্পূর্ণ হলো টিপু আলমের গল্পে রূপক বিন রউফের পরিচালনায় রাশেদ সীমান্ত এবং নাদিয়া অভিনীত ভালোবাসা দিবসের বিশেষ নাটক ‘প্লে গার্ল’। নাটকের কাহিনী হলো-আনিস ইউনিভার্সিটির ক্রিকেট টিমের অধিনায়ক। ক্রিকেটই তার ধ্যান-জ্ঞান। অন্যদিকে সুন্দরী ফারিয়া আনিসদের ডিপার্টমেন্টের দুই ব্যাচ জুনিয়র। ফারিয়া একই সাথে অনেক ছেলের সাথে সম্পর্ক বজায় রাখে যা অন্যরা জানে না। খাওয়া দাওয়া করে, ঘুরাঘুরি করে, সারারাত মোবাইল চ্যাটিং ইত্যাদি। যে ছেলেই তার প্রতি কিছুটা দুর্বল হয়ে পড়ে, তাকে সে বিভিন্ন ধরনের কঠিন কঠিন প্রেমের পরীক্ষা নেয়। অনেক ছেলেই ফারিয়াকে পাওয়ার জন্য সে কষ্টসাধ্য পরীক্ষা দেয়। যা ফারিয়া খুব উপভোগ করে। কোন ছেলে যদি সরাসরি ফারিয়াকে প্রেমের প্রস্তাব দেয়, ফারিয়া তাকে সাফ সাফ জানিয়ে দেয় ফারিয়া শুধু তার সাথে টাইম পাস করেছে এর চেয়ে বেশী কিছুই নয়। এইরকম অনেক ছেলের মনে কষ্ট দিয়েছে ফারিয়া। ক্রিকেট পাগল অনিস কোনদিন ইউনিভার্সিটির কোন মেয়ের দিকে তাকায়ওনি। কিন্তু একদিন সে ফারিয়াকে দেখতে পায় এবং তার রূপে মুগ্ধ হয়ে যায়। আনিস সিদ্ধান্ত নেয় যে কোন মূল্যে ফারিয়াকে তার জীবনে চাই। আনিসের বন্ধুরা ফারিয়া সম্পর্কে ধারনা দিলেও আনিস পিছপা হয় না।

আনিস বলে “আমি আনিস… আমি শুধু আনি, দেই না”। আনিস তার ভালোলাগার বিষয়টি ফারিয়াকে জানায়। ফারিয়া মনে মনে খুশি হয় এই ভেবে যে ইউনিভার্সিটির ক্রিকেট টিমের ক্যাপ্টেনকে এবার নাকানি চুবানি খাওয়ানো যাবে। ফারিয়া আনিসকে শর্ত দেয় “আমাকে পেতে হলে আপনাকে কিছু পরীক্ষা দিতে হবে এবং পরীক্ষায় পাশ করে প্রমাণ করে দিতে হবে আপনি আমাকে কতটুকু ভালোবাসেন” । আনিস রাজি হয় এবং শুরু হয় একের পর এক কঠিন পরীক্ষা। এরপর কি আনিস ফারিয়াকে পায়?

তা দেখতে চোখ রাখতে হবে আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারি বিশ্ব ভালোবাসা দিবসে বৈশাখী টেলিভিশনে রাত ৭.৪০ মিনিটে।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ