মানুষের কল্যাণেই আমার সুখ নিহিত: কাদির

প্রকাশিতঃ ৭:১৫ অপরাহ্ণ, মঙ্গল, ৫ নভেম্বর ১৯

ঢাকা কলেজ প্রতিনিধি: ঢাকা কলেজে বিশিষ্ট শিল্পপতি আব্দুল কাদির মোল্লার আগমন উপলক্ষে ঢাকা কলেজ অডিটোরিয়ামে একক বক্তৃতা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, ” আমি ১৬০ টাকার জন্য এইচ.এস. সি পরীক্ষা দিতে পারিনি। আজ আমার সৎ ইচ্ছা, চিন্তা চেতনা আমাকে সম্মানিত করেছে। আমি নিজের জন্য অনেক লড়াই করেছি। এখন ও মানুষের কল্যাণের জন্য লড়াই করি। তাতেই আমার সুখ নিহিত।

মঙ্গলবার (৫ নভেম্বার) দুপুরে ঢাকা কলেজের শহীদ নজিবুদ্দিন খান খুররম অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠানের আয়োজন হয়।

আব্দুল কাদির মোল্লার জীবনের কষ্টের কথা বলে উপস্থিত সকলকে আবেগে আপ্লুত করেন।

কলেজ শিক্ষার্থীদের জন্য ৪ টি বাস দেওয়ার আশ্বাস দিয়ে আব্দুল কাদির মোল্লা বলেন, আমি অত্যন্ত গরীব ছিলাম, আমার বাবা দিনমজুর ছিলেন। আজ আমি অনেক প্রতিষ্ঠান তৈরী করেছি শুধুই মানুষের কল্যাণের স্বার্থে। শিক্ষকবৃন্দের জন্য একটি ১ টি মাইক্রো বাস উপহার দিবো।

শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্য তিনি বলেন, শুধু একাডেমিক সার্টিফিকেটে নয়! জীবনমুখী সার্টিফিকেট গ্রহন করতে হবে।

উল্লেখ্য যে, নরসিংদীর সূর্য সন্তান, থার্মেক্স গ্রুপের চেয়ারম্যান আব্দুল কাদির মোল্লা একজন শিল্পপতি হলেও তিনি দানশীল,সমাজসেবক, অনুপ্রেরণাময়ী উদ্যোক্তা। তিনি অসংখ্য কলেজ,স্কুল,মসজিদ, মাদরাসা, এতিমখানা, আশ্রয়হীন মানুষকে আশ্রয় দিয়েছেন।

অনুষ্ঠানে কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর নেহাল আহমেদ বলেন, জিরো থেকে হিরো হয়েছেন তিনি। জীবনের মানে শুধুই উপার্জন করে নিজের সুখ উদযাপনের জন্য খরচ করা নয়, মানুষের মাঝে বিলিয়ে দেয়াই জীবনের সুখ। একজন কাদির মোল্লা জায়গা থেকে কয়জন বলতে পারে আমার বাবা দিনমজুর! সুতারাং শিক্ষার্থীদের কাদির মোল্লা সাহেবের কাছ থেকে অনেক কিছু শেখার আছে।

উক্ত অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন উপাধ্যক্ষ প্রফেসর এটি. এম.মইনুল ইসলাম, শিক্ষক সমিতির সম্পাদক প্রফেসর আব্দুল কুদ্দুস। এছাড়াও কলেজের সকল শিক্ষকবৃন্দ, ঢাকা কলেজ সাংবাদিক সমিতি সদস্যবৃন্দ, ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ ও সাধারণ শিক্ষার্থীবৃন্দ।

সময় জার্নাল/ ফাহাদ

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

ফেসবুকের মাধ্যমে মতামত জানানঃ