যুক্তরাষ্ট্রের ৪৬তম প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন

প্রকাশিতঃ ১১:৫৫ অপরাহ্ণ, শনি, ৭ নভেম্বর ২০

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : অবশেষে শেষ হাসিটা জো বাইডেনই হাসলেন। নানা হিসাব নিকাশের অবসান ঘটিয়ে সিএনএনের প্রক্ষেপন অনুযায়ী তিনিই এখন যুক্তরাষ্ট্রের ৪৬তম নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট। পেনসিলভ্যানিয়ায় তিনি জয়ের ফলে তার মোট ইলেকটোরাল কলেজ ভোট এখন ২৭৩। ফলে তিনিই হচ্ছেন যুক্তরাষ্ট্রের ৪৬তম প্রেসিডেন্ট। সঙ্গে আরেক ইতিহাস সঙ্গে নিয়েছেন তিনি। প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে কমালা হ্যারিসকে সঙ্গে করে তিনি হোয়াইট হাউজের টিকিট কেটে ফেলেছেন।

উল্লেখ্য, যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হতে প্রয়োজন হয় ২৭০ ইলেকটোরাল কলেজ ভোট। কিন্তু ফক্স নিউজের হিসাবে গত তিন দিন ধরে জো বাইডেন ২৬৪ তে এবং ডনাল্ড ট্রাম্প ২১৪ তে আটকে ছিলেন।

বিবিসি, সিএনএনের হিসাবে নিশ্চিত ২৫৩ টি ইলেকটোরাল কলেজ ভোট পেয়ে এগিয়ে ছিলেন বাইডেন। ট্রাম্প পেয়েছিলেন ২১৪। এ সময়ে নানা হিসাব নিকাশ, জল্পনা-কল্পনা চলতে থাকে। সমীকরণটি এসে দাঁড়ায় ‘যদি’ এবং ‘কিন্তু’তে।

বিভিন্ন মিডিয়ায় বলা হয়, নেভাদায় অনেক এগিয়ে আছেন বাইডেন। সেখানকার ৬টি ভোট হলেই তার হোয়াইট হাউজের দৌড় পূর্ণ হয়। তার সঙ্গে যোগ হয় ব্যাটলগ্রাউন্ড বলে পরিচিত পেনসিলভ্যানিয়া, নর্থ ক্যারোলাইনা, জর্জিয়া। এসব রাজ্যে প্রথম দিকে পিছিয়ে থাকলেও শুক্রবার চমক সৃষ্টি করে ট্রাম্পকে পিছনে ফেলে এগিয়ে যান জো বাইডেন।

নাটকীয়তা দেখাতে থাকেন পেনসিলভ্যানিয়াতে। সেখানে তিনি আস্তে আস্তে প্রায় ২৯ হাজার ভোটের ব্যবধানে এগিয়ে যান। এ রাজ্যে আছে ২০টি ইলেকটোরাল কলেজ ভোট। বিবিসি সহ বিভিন্ন মিডিয়ায় তিনি নিশ্চিত ২৫৩টি ইলেকটোরাল কলেজ ভোট পেয়েছেন বলে নিশ্চিত করা হয়। তার সঙ্গে যোগ হলো পেনসিলভ্যানিয়ার ফল। এতে জো বাইডেন আরো ২০টি ইলোকটোরাল কলেজ ভোট পেলেন। ২৫৩ এর সঙ্গে যোগ হলো ২০। ফলে তার বিবিসি বা সিএনএনের হিসাবে তার এখন ইলেকটোরাল কলেজ ভোটের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৭৩।

অন্য রাজ্যগুলোতে কি হচ্ছে সেদিকে ফিরে তাকানোর ফুরসৎ এখন আর নেই বাইডেনের। তাকে এখন ডাকছে হোয়াইট হাউজ নামের সাদা বাড়িটি। তিনি খুব তাড়াতাড়ি জাতির উদ্দেশে ভাষণ দিতে পারেন।

লকডাউন পরিস্থিতিতে পাঠকদের অবস্থা, সমস্যায় পড়া মানুষদের কথা সরকার, প্রশাসন এবং সকল খবরাখবর আমাদের সব পাঠকের সামনে তুলে ধরতে আমরা মনোনীত লেখাগুলি প্রকাশ করছি। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের পাঠাতে ক্লিক করুন

স্থান, তারিখ ও কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই লিখে পাঠাবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।